May 19, 2024, 3:05 pm

বিজ্ঞপ্তি :
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দ্বায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
শিরোনাম :
সুজানগরে ১৪ বছরের এক কিশোরীকে জোরপূর্বক ধর্ষণের অভিযোগ পদোন্নতি পেয়ে সিনিয়র সহকারী সচিব হলেন তেঁতুলিয়ার এসিল্যান্ড মাহবুবুল হাসান ঝিনাইদহে আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে আহত ২১ গোদাগাড়ীতে ডিজিটাল প্রিপেইড মিটার স্থাপন বাতিলের দাবিতে মানববন্ধন উপজেলা চেয়ারম্যান ময়নাকে গণসংবর্ধনা আশুলিয়ায় সন্ত্রাসী কায়দায় হামলা-কুপিয়ে এক যুবক আহত ও নারীদের শ্লীলতাহানির অভিযোগ ঝড়-বৃষ্টি আঁধার রাতে, জনগণ আছে শেখ হাসিনার সাথে- প্রতিমন্ত্রী শহীদুজ্জামান সরকার তেঁতুলিয়ায় পুরোনো ইট দিয়ে বাজার সেড নির্মাণ নড়াইলে বিলুপ্তির পথে বাবুই পাখির বাসা সাতক্ষীরার তালায় ট্রাক উল্টে ২ শ্রমিক নিহত আহত ১১
বগুড়া শাজাহানপুরে পত্তন ছাড়াই সরকারি পুকুর চাষ পরস্পর বিরোধী বক্তব্য দিচ্ছেন ব্যাবসায়ী ও ভূমি অফিস

বগুড়া শাজাহানপুরে পত্তন ছাড়াই সরকারি পুকুর চাষ পরস্পর বিরোধী বক্তব্য দিচ্ছেন ব্যাবসায়ী ও ভূমি অফিস

মিজানুর রহমান মিলন,
শাজাহানপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি :

বগুড়া শাজাহানপুর উপজেলার খড়না ইউনিয়ন ভূমি অফিসের ৬বিঘার বেশি আয়তনের পুকুরটি পত্তন ছাড়াই চাষ করছেন স্থানীয় ৩ব্যক্তি। বিষয়টি অস্বীকার করে উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) বলছেন পুকুরটি তাঁরা নিজেরাই চাষ করছেন। পুকুরটি পত্তন দিলে বছরে কমপক্ষে ২লক্ষ টাকা সরকার রাজস্ব পাবে বলছেন উপজেলার বিভিন্ন মৎস ব্যাবসায়ীরা। পুকুর চাষকরা ৩ব্যাক্তি একেক জন একেক কথা বলছেন। সূত্রঃ জাতীয় দৈনিক আজকের পত্রিকা।

পুকুর চাষ করা ব্যক্তিরা হলেন খড়না ইউনিয়নের খড়না নয়াপাড়া গ্রামের শহিদুল ইসলাম(৪২), খড়না সরকারপাড়া গ্রামের মাসুদুজ্জামান মিটু(৪৫) এবং খড়না ধাওয়াপাড়া গ্রামের নজরুল ইসলাম।(৫০)। এদের মধ্যে নজরুল ইসলাম উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি।

সরেজমিনে গিয়ে কথা হয় পুকুরপাড়ে বাসিন্দাদের সাথে। অন্তত ১০জন বাসিন্দা বলেন, গত ২বছর ধরে পুকুরটি চাষ করছেন স্থানীয় শহিদুল ইসলাম, মাসুদুজ্জামান মিটু এবং নজরুল ইসলাম। অনেক বড় পুকুর এবং প্রচুর মাছ হয়।

খড়না ইউনিয়ন ভূমি অফিসের উপসহকারী কর্মকর্তা মোঃ সুরুমান মাসুদ বলেন, খড়না ভূমি অফিসের সাথের পুকুরটির মালিক ভূমি অফিস। পুকুরটি কারা কিভাবে চাষ করছেন তা আমার জানা নাই। এ বিষয়ে আরো কিছু জানতে চাইলে উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) এর সাথে কথা বলেন।

খড়না ইউনিয়ন ভূমি অফিসের একজন কর্মচারী মোঃ মামুন বলেন, পুকুরটির আয়তন ৬বিঘার উপরে। সঠিক মাপ নথি দেখে জানাতে পারবো। তবে এরপর এ বিষয়ে আর কথা বলেন নি তিনি।

জানতে চাইলে পুকুর চাষ করা ব্যাক্তিদের একজন শহিদুল ইসলাম বলেন, আসলে আমি তো চাষ করিনা। পুকুর চাষ করে মাসুদুজ্জামান মিটু এবং নজরুল ইসলাম। আমি তাঁদের সাথে আছি। মূলত নজরুল ইসলাম পুকুরটি নিয়ে দিয়েছেন। ২বছর বা আরেকটু বেশি সময় ধরে আমরা চাষ করছি।

মাসুদুজ্জামান মিটু মোবাইল ফোনে বলেন, ভূমি অফিসের পুকুরটি চাষ করতে আমারা বছরে ২০লক্ষাধিক টাকা খরচ করেছি। লাভ সেরকম হয়না। বিভিন্ন জন এসে টাকা, মাছ চায়। সরকারি ডাক না থাকলেও বিভিন্ন জনকে বছরে ৫লক্ষাধিক টাকা দিতে হয়।

পুকুর চাষ করা আরেক ব্যাক্তি নজরুল ইসলাম বলেন, ভূমি অফিসের পুকুর আমরা তত্বাবধান করছি। কাউকে টাকা পয়সা দেয়া লাগেনা, শুধু মাছ দেই। অফিসের কেউ চাইলে তো না করা যায়না।

জানতে চাইলে উপজেলার পুরাতন মৎস চাষীদের একজন নিত্যানন্দ দাস বলেন, ৬বিঘার উপরে ভূমি অফিসের ওই পুকুর বছরে কমপক্ষে ২লক্ষ টাকায় পত্তন নেয়া যাবে। সব বাদ দিয়েও বছরে কমপক্ষে ৪লাখ টাকা লাভ করা যাবে।

জানতে চাইলে শাজাহানপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার(ভূমি) সানজিদা মুস্তারী আজকের পত্রিকাকে বলেন, পুকুরটা ভূামি অফিসের। আমরা নিজেরাই সেখানে মাছ ছেড়েছি।

Please Share This Post in Your Social Media






© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD