April 24, 2024, 10:33 am

বিজ্ঞপ্তি :
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দ্বায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
শিরোনাম :
কেশবপুরে বিএনপি নেতা পৌর কাউন্সিলর ব্যক্তিগত উদ্যোগে ৪ হাজার পিচ স্যালাইন বিতরণ কেশবপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্ধ,কে কোন প্রতীক পেল তানোরে ময়নার স্মরণকালের সর্ববৃহত শোডাউন গোদাগাড়ীতে সাড়ে ৬ কেজি হেরোইনসহ মাদক সম্রাট ঝাবু গ্রেফতার পাইকগাছায় ৬ কিলোমিটার সড়ক বদলে দিয়েছে লতা ইউনিয়নের যোগাযোগ ব্যবস্থা তীব্র তাপদাহে স্বরূপকাঠির জন জীবন অতীষ্ট বেড়েছে ডায়রিয়ার প্রকোপ শয্যা সংকটে মেজেতে বসে চিকিৎসা নিচ্ছেন রোগিরা সাভারের রানা প্লাজা ট্রাজেডির সেই ভয়াবহ দিবসটি হাজারো মানুষের মৃত্যুর ইতিহাস হাতীবান্ধায় ইস্তিসকার নামাজ আদায় বৃষ্টির আশায়  ভাবখালী আউলিয়ার বাজারের জলাবদ্ধতা নিরসনে আরসিসি ড্রেন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন মুন্সীগঞ্জে টঙ্গীবাড়ী উপজেলায় দুই চেয়ারম্যান এবং দুই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র অবৈধ
ময়মনসিংহে ওসি কামালের এ্যাকশনে ২৪ ঘন্টায়২ হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটনসহ গ্রেফতার-৩

ময়মনসিংহে ওসি কামালের এ্যাকশনে ২৪ ঘন্টায়২ হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটনসহ গ্রেফতার-৩

ময়মনসিংহ প্রতিনিধি।
ময়মনসিংহে একই সাথে মাত্র ২৪ঘন্টার ব্যবধানে সাথী ও তাপস পৃথক দুটি হত্যাকান্ডের রহস্য উদঘাটন সহ ঘটনার সাথে জড়িত ৩ কে গ্রেফতার করেছে কোতোয়ালি মডেল থানা পুলিশ। গ্রেফতারকৃতরা হলো, বাবুল, হৃদয় ও খোকন। গ্রেফতার কৃত আসামী বাবুল ও হৃদয় এর বাড়ী নগরীর আকুয়া জুবলী কোয়ার্টার এলাকায়। তাদের দুজনকে নগরীর সাথী হত্যা কান্ডের সাথে জড়িত বলে পুলিশ জানিয়েছে।এদের মাঝে আসামী হৃদয় পুলিশের কাছে ময়মনসিংহের আলোচিত ঘটনা সাথী হত্যাকান্ডের দায় স্বিকার করেছে। নিহত সাথী নগরীর আকুয়া জুবলী কোয়ার্টার এলাকার মোফাজ্জল হোসেন এর মেয়ে। রবিবার (২৫শে সেপ্টেম্বর) দুপুরে কোতোয়ালি মডেল থানার আয়োজনে অনুষ্ঠিত মিট দ্যা প্রেস অনুষ্ঠানের মাধ্যমে এক প্রেস ব্রিফিংয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (কোতোয়ালি সার্কেল) শাহীনুল ইসলাম ফকির এ তথ্য জানান।

মিট দ্যা প্রেস অনুষ্ঠানের সভাপতিত্ব করেন কোতোয়ালি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি শাহ কামাল আকন্দ।

প্রাপ্ত তথ্য মতে, গত ২৩ সেপ্টেম্বর ভোরে নগরীর আকুয়া জুবলী কোয়ার্টার এলাকায় সাথী আক্তারকে (৩৮) তার ভাড়া বাসায় রক্তাক্ত অবস্থায় মৃত দেখতে পায় স্থানীয়রা। স্থানীয়রা থানায় খবর দিলে কোতোয়ালী থানা পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে তদন্ত শুরু করে। এ ঘটনায় নিহতের বোন বাদি হয়ে কোতোয়ালি মডেল থানায় মামলা নং-১৩/১০০১, তারিখ-২৪/০৯/২০১২ ইং, ধারা
১৪৩/৪৪৮/৩০২/৩৪ দঃ বিঃ দায়ের করে।নগরীতে নিজ ঘরে নারী হত্যাকে অধিক গুরুত্ব দিয়ে জেলা পুলিশ সুপার মাছুম আহাম্মদ ভূঞা দ্রুততম সময়ে হত্যার রহস্য উদঘাটন ও ঘটনার সাথে জড়িতদের গ্রেফতারে কঠোর নির্দেশনা দিলে পুলিশ সুপারের নির্দেশনা মোতাবেক কোতোয়ালী সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শাহীনুল ইসলাম ফকিরের তত্বাবধানে কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি শাহ কামাল আকন্দের নেতৃত্বে এসআই মোঃ আনোয়ার হোসেন-১, এসআই নিরুপম নাগ, এএসআই সুজন চন্দ্র সাহা সহ একটি টিম বিভিন্ন স্থানে টানা অভিযান শুরু করে। অভিযানের এক পর্যায়ে হত্যাকান্ডের ২৪ ঘন্টার মধ্যেই সদরের চুরখাই ও কেওয়াটখালী এলাকা থেকে ২৪শে সেপ্টেম্বর শনিবার রাতে হত্যাকান্ডে জড়িত বাবুল ও হৃদয়কে গ্রেফতার করে। পরে তাকে নিয়ে পুলিশ হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত আলামত উদ্ধারে নিয়ে যাওয়া হলে তার দেয়া তথ্য মতে ও নিজ হাতে বের করে দেয়া হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত একটি রক্তমাখা স্টীলের ছোরা উদ্ধার করে। গ্রেফতারকৃত হৃদয় পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে হত্যাকান্ডের ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে।

অপরদিকে নগরীর বলাশপুর হাক্কানী মোড়ে ২৪ সেপ্টেম্বর শনিবার সন্ধায় মোটরসাইকেল ও সিএনজির সাথে ধাক্কা লাগার ঘটনাকে কেন্দ্র করে কথাকাটাকাটির জের ধরে সিএনজি ড্রাইভার তাপস চন্দ্র সরকারকে ছুরিকাঘাতে হত্যা করা হয়। এ হত্যার ঘটনায় খোকন নামে একজনকে গ্রেফতার করে। পরে তার তথ্য মতে, হত্যাকান্ডে ব্যবহৃত আলামত (ছোরা) উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় মামলার প্রস্তুতি চলছে। ব্রিফিংয়ে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আরো বলেন, ডিভোর্সী নারী সাথী আক্তার তার এক সন্তান নিয়ে আকুয়া জুবিলি কোয়ার্টার এলাকায় ভাড়ায় বসবাস করতেন। স্থানীয় আকুয়া মড়লপাড়ার হৃদয় নামক এক ব্যক্তি ঐ নারীকে উত্যক্ত করে আসছিল। এ ঘটনায় শালিশ পর্যন্ত হয়েছে। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা যাচ্ছে শালিশের কারণে হৃদয় ক্ষিপ্ত হয়ে ঐ নারীকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করেছে। হত্যাকান্ডের প্রকৃত কারণ এবং জড়িত অন্যান্যদের নাম ঠিকানাসহ ত্দন্ত আরো অনেক তথ্য প্রকাশ পাবে। এছাড়া সিএনজি চালক তাপস হত্যায় জড়িত অন্যান্যদের গ্রেফতারে চেষ্টা চলছে। ব্রিফিংকালে ওসি শাহ কামাল আকন্দ, পুলিশ পরিদর্শক (তদন্ত) ফারুক হোসেন, পুলিশ পরিদর্শক (ইন্টেলিজেন্স) ওয়াজেদ আলী উপস্থিত ছিলেন। এদিকে দুটি হত্যাকান্ডের ঘটনায় হত্যাকান্ডর ২৪ ঘন্টার মধ্যে রহস্য উদঘাটন ও জড়িতদের গ্রেফতার করায় পুলিশের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়েছে নগরবাসী। একই সাথে কোতোয়ালি মডেল থানার অফিসার ইনচার্জ ওসি শাহ কামাল আকন্দের মেধাবী অভিযানের প্রশংসাও করেন ময়মনসিংহবাসী।

Please Share This Post in Your Social Media






© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD