February 27, 2024, 1:11 pm

বিজ্ঞপ্তি :
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দ্বায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
শিরোনাম :
উজিরপুরে পৌরসভা ও প্রশাসনের আয়োজনে স্থানীয় সরকার দিবস পালিত রাষ্ট্রপতি পদক পেলেন সুনামগঞ্জ জেলার পুলিশ সুপার খুলনায় জাতীয় পরিসংখ্যান দিবস ও জাতীয় স্থানীয় সরকার দিবস পালিত খুলনায় জাতির পিতার ১০৪তম জন্মবার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষ্যে প্রস্তুতিমূলক সভা অনুষ্ঠিত খুলনায় শিশুশ্রম নিরসন বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত আশুলিয়ায় ডিবি পুলিশ কর্তৃক ৬জন ডাকাত গ্রেফতারের পর রিমান্ডে চাঞ্চল্যকর তথ্য স্বাধীন ও সার্বভৌম প্রজাতন্ত্রে জনগণের বন্ধু পুলিশ ও সাংবাদিকের দায়িত্ব কি?-বাকিটা ইতিহাস গোদাগাড়ীতে হেরোইনসহ নারী মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার ভিজিডির তালিকায় নাম একজনের, চাল খায় আরেকজন পাইকগাছা প্রেসক্লাবে পাল্টা পাল্টি সংবাদ সম্মেলন
ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে চলছে পাইকগাছার কপিলমুনি বনিক সমিতির কার্যক্রম

ঝুঁকিপূর্ণ ভবনে চলছে পাইকগাছার কপিলমুনি বনিক সমিতির কার্যক্রম

ইমদাদুল হক,পাইকগাছা(খুলনা)।।
খুলনা জেলার দ্বিতীয় বৃহৎতম বাণিজ্যিক শহর কপিলমুনি। দানবীর রায় সাহেব বিনোদ বিহারী সাধু প্রায় শত বছর আগে পাইকগাছা উপজেলার কপিলমুনি বাজার আধুনিকায়ন করেন। যা দেশের দক্ষিণা লের জেলা গুলোর মধ্যে লক্ষনীয় ছিল। সেই থেকে নাম করণ করা হয় বিনোদগঞ্জ বাজার। বাজারের উন্নয়ন ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে তৎকালিন সময় বিনোদ বাবু প্রতিষ্ঠা করেন বিভিন্ন জনহিতকর প্রতিষ্ঠান। তেমনি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের স্বার্থে বাজারের প্রাণ কেন্দ্রে সুদর্শন কারুকার্য খচিত ভবন নির্মান করেন। এ ভবনে সিদ্ধেশ্বরী ব্যাংকের সকল কার্য্যক্রম পরিচালনা করা হত। যা আজ কালের সাক্ষী। সেখানে বসে বিনা লাভে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের মাঝে বিতরণ করা হতো মূলধন। সেই সময় উৎকর্ষ সমিতির নামে এ সব ঋণ বিতরণ করতেন মহান ব্যক্তিত্ব রায় সাহেব বিনোদ বিহারী সাধু।২০ ইি চওড়া চুন সুড়কির নির্মিত পাকা দেওয়াল আর লৌহ কাঠের তৈরী দরজা জানালা দ্বিতল ভবন আজও মনে করিয়ে দেয় তার অতীত ঐতিহ্যের ইতিকথা। কিন্তু কালের বিবর্তন ও বৈরীতায় আজ সেই সুবিশাল ভবনটি হুমকির মুখে পড়েছে। দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে বয়সের ভারে জরাজীর্ণ হয়ে নুয়ে পড়েছে। ভবনের দেওয়ালের পলেস্তারা, ছাদসহ এর অবকাঠামো নড়বড়ে চরম ঝুঁকিপূর্ণ হয়েছে। অতি মাত্রায় ঝুঁকিপূর্ণ দ্বিতলের উপরের কক্ষ গুলো কয়েক বছর আগে ভেঙে ফেলা হয়েছে।
বর্তমানে একতলা ভবনে চরম ঝুঁকির মধ্যে চলছে কপিলমুনি বিনোদগঞ্জ বণিক সমিতির কার্য্যক্রম। ফলে যে কোনো মুহুর্তে বড় ধরনের দুর্ঘটনার আশঙ্কা করেছেন ব্যবসায়ীসহ নের্তৃবৃন্দ। অথচ রাজস্ব আয় সমৃদ্ধ বাণিজ্যিক উপশহর এর গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাটি সরকারের পৃষ্টপোশকতার অভাবে আজও সংস্কার থেকে বি ত। ইতিপূর্বে সরকারের সংশ্লিষ্ট সচিব ও জেলা পরিষদ প্রশাসক পৃথকভাবে ভবন নির্মাণের একাধিক ফলক উন্মোচন করলেও তা কবে নাগাত বাস্তবায়ন হবে তা নিয়েও রয়েছে বিতর্ক।
বাজারের ব্যবসায়ীরা বলছেন, তারা ফলক উন্মোচনের কথা শুনে ঐতিহ্যবাহী এ ভবন সংস্কারে আশার আলো দেখলেও বর্তমানে এর কোনো প্রক্রিয়ার বিন্দুমাত্র প্রতিফলন চোখে পড়েনি। জানাযায়, বাংলাদেশ সরকারের পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. মিহির কান্তি মজুমদার গত ৩রা জুন’১১ ভবন নির্মাণে বণিক সমিতির সম্মুখে এক নাম ফলক উন্মোচন করেন। এরপর গত ৩০ জানুয়ারি’১২ তারিখে খুলনা জেলা পরিষদ প্রশাসক শেখ হারুনার রশিদ একইভাবে ভবন নির্মাণে ফলক উন্মোচন করেন। অথচ দীর্ঘ সময় অতিক্রম হলেও এর বাস্তবায়নে কোনো প্রক্রিয়া অদ্যবধি চোখে পড়েনি। ফলে ঐতিহ্যবাহী এ ভবনটির সংস্কার ও নির্মাণে আবারও অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। বিনোদগঞ্জ বনিক সমিতির সদস্য সচিব ও কপিলমুনি প্রেসক্লাবেরর সাধারন সম্পাদক আঃ রাজ্জাক রাজু বলেন, দানবীর রায় সাহেব বিনোদ বিহারী সাধু প্রায় শত বছর আগে পাইকগাছা উপজেলার কপিলমুনি বাজার আধুনিকায়ন করেন। তেমনি ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের স্বার্থে বাজারের প্রাণ কেন্দ্রে সুদর্শন কারুকার্য খচিত ভবন নির্মান করেন। এ ভবনে সিদ্ধেশ্বরী ব্যাংকের সকল কার্য্যক্রম পরিচালনা করা হত। সেখানে বসে বিনা লাভে ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের মাঝে বিতরণ করা হতো মূলধন। সেই সময় উৎকর্ষ সমিতির নামে এ সব ঋণ বিতরণ করতেন মহান ব্যক্তিত্ব রায় সাহেব বিনোদ বিহারী সাধু।
এ জন্য কনো হতাহত ও ঐতিহ্য রক্ষায় বাজারের ব্যবসায়ী ও এলাকাবাসীর দাবী, দ্রুত বাস্তবায়ন করা হোক শত বছরের ঐতিহ্যবাহী সিদ্ধেশ্বরী ভবণের নির্মাণ কাজ। এ ব্যাপারে স্থানীয় সংসদ সদস্যসহ সংশ্লিষ্ট বিভাগের উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন তারা।

ইমদাদুল হক,
পাইকগাছা,খুলনা।

Please Share This Post in Your Social Media






© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD