July 14, 2024, 11:53 pm

বিজ্ঞপ্তি :
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দ্বায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
শিরোনাম :
খগাখড়িবাড়ী বক্স কালভাট ঝু*কিপূর্ণ হওয়ায় পথচারী  চলাচলে দূ*র্ভোগ হারাদিঘী দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয় তেঁতুলিয়ায় প্রধান শিক্ষকের বিরু*দ্ধে অভিযোগের তদন্তে জেলা শিক্ষা অফিসার নড়াইলে ইয়া*বা ট্যাবলেটসহ একজন গ্রে*ফতার আশুলিয়ায় ৮ বছরের শিশুর রহ*স্যজনক মৃ*ত্যু-বাড়ির সেফটি ট্যাংকি থেকে লা*শ উদ্ধার কোটা বিরো*ধী আ*ন্দোলনের নামে মুক্তিযোদ্ধা ও স্বাধীন দেশ নিয়ে ক*টুক্তিকারীদের দৃষ্টান্তমুলক শা*স্তি দাবি করেছেন- লাভলু নড়াইলে কলেজ ছাত্র চয়ন মাঝির আত্মহ*ত্যা ঝিনাইদহে মাদ*কদ্রব্য অ*পব্যবহার ও অ*বৈধ পা*চাঁরবিরোধী র‌্যালী অনুষ্ঠিত স্বরূপকাঠিতে ইয়া*বা দিয়ে প্রতিপক্ষকে ফাঁ*সাতে গিয়ে নিজেরাই ফেঁ*সে গেল চাঁপাইনবাবগঞ্জ মধুমালা রেডিও ক্লাবের বৃক্ষরোপণ বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে বসতঘর পু*রে ছাই ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষ*তি
শালিখায় অনাবৃষ্টিতে আমন ধান নিয়ে বিপাকে পড়েছে কৃষক

শালিখায় অনাবৃষ্টিতে আমন ধান নিয়ে বিপাকে পড়েছে কৃষক

এইচ,এম রাজিব

আমন ধানের চারা রোপণের উপযুক্ত সময় শ্রাবণ মাস। কিন্তু শ্রাবণ ও আষাঢ় মাস শেষ হয়ে গেলেও হয়নি ভরা মৌসুমের বৃষ্টি। অনাবৃষ্টিতে আমন ধান নিয়ে বিপাকে পড়েছে শালিখা উপজেলার আমন ধান চাষীরা। ভরা মৌসুমের বৃষ্টির আশায় কৃষক স্বপ্ন দেখে আমন ধান চাষের কিন্তু প্রকৃতির নির্ভর হওয়ায় কৃষকের সেই স্বপ্ন বৃথা হতে যাচ্ছে। তীব্র খরার ফলে ফেটে যাচ্ছে ফসলের মাঠ নষ্ট হচ্ছে আমনের চাষ।

শালিখা উপজেলার আমন ধান চাষীদের সাথে কথা বললে তারা জানান, লোডশেডিং এর ফলে জমিতে পর্যাপ্ত পরিমাণে সেচ দিতে পারছি না। তেল ও সারের দাম বৃদ্ধি থাকায় আমন ধান চাষ করে আমরা লাভবান হতে পারবো না । আমন ধান চাষে আমরা প্রকৃতির উপর নির্ভরশীল হয়। কিন্তু এবার আষাঢ়, শ্রাবণ ভাদ্র মাস পার হয়ে যাচ্ছে তবুও বৃষ্টির মুখ দেখতে পারছি না। প্রখর খরার তাপে শুকিয়ে যাচ্ছে জমি। বার বার সেচ দিয়ে দিশেহারা হতে হচ্ছে । লোডশোডিং এর ফলে জমিতে পর্যাপ্ত পরিমাণে সেচ দিতে পারছি না। মেশিনের সেচ পদ্ধতি ব্যাবহার করবো কিন্তু তেল দিয়ে চাষ করে আমাদের লোকশান গুনতে হবে। ইউরিয়া সারের দাম আগে একহাজার টাকা বস্তা কিনতাম কিন্তু বর্তমানে চৌদ্দশত টাকা বস্তা কিনতে হচ্ছে। বেশি দাম দিয়েও ঠিকমতো সার কিনতে পারছি না। সবকিছুর দাম বৃদ্ধি হলেও কখনও নায্যমুল্য পায়না কৃষক।

উপজেলার ধনেশ্বরগাতী ইউনিয়নের ছানি আড় পাড়া গ্রামের আমন ধান চাষী মোঃ সোহরাব মীরের সাথে কথা বললে তিনি জানান, এবার বৃষ্টি না হওয়ার কারণে আমন ধান চাষ নিয়ে বিপাকে পড়তে হচ্ছে। একদিকে লোডশেডিং অন্যদিকে তেলের দাম বৃদ্ধি নেই বৃষ্টি ফসলের মাঠ ফেটে যাচ্ছে। আমন ধানে ঠিকমতো সেচ দিতে পারছি না। এই আমন ধানের চাষটা আমরা প্রকৃতির উপর নির্ভরশীল হয়ে করি।

এব্যাপারে উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোঃ আলমঙ্গীর হোসেন জানান, শালিখা উপজেলায় আমন ধান চাষে বেশির ভাগই কৃষক প্রকৃতির উপর নির্ভরশীল হয়। কিন্তু এবার প্রকৃতির আর্শীবাদ না থাকায় একটু সমস্যায় পড়তে হচ্ছে। সমস্যা সমাধান করতে ইঞ্জিন চালিত মেশিনের মাধ্যমে সেচ দিতে হবে। এবছরে শালিখা উপজেলায় আমন ধানের চাষ হয়েছে মোট ১৩,৮৫০ হেক্টর জমিতে। আশা করি, এবার আমন ধানের ফলন ভালো হবে।

Please Share This Post in Your Social Media






© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD