শনিবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২৩, ১০:৩০ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি :
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দ্বায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
শিরোনাম:
ঝালকাঠিতে কাভার্ডভ্যানের চাপায় ২ মোটরসাইকেল আরোহী নিহত ৪ লাখ টাকা দামের ভটভোটি উদ্ধার সঙ্গে দুই জন চোর আটক আই ই বি নির্বাচনে ইঞ্জিনিয়ার সুব্রত দাসকে ১৫নং ব্যালটে ভোট দিন বানিয়াধলায় বীরমুক্তিযোদ্ধা রহমান ফকির এর বাৎসরিক ওরশ শরীফ অনুষ্ঠিত মাদকসেবী, মাদক কারবারিরা দেশ জাতি ও সমাজের শত্রু, তাদের সাথে কোন আপোষ নেই-ওসি শাহ কামাল আকন্দ প্রধানমন্ত্রী রোববার রাজশাহীতে ১ হাজার ৩শ ১৬ কোটি ৯৭ লাখ টাকার বিভিন্ন প্রকল্প উদ্বোধন করবেন বাকেরগঞ্জে শীতার্তদের মাঝে পুলিশ সুপারের কম্বল বিতরণ প্রধানমন্ত্রীর আগমনে গোদাগাড়ী, তানোরও উৎসবের আমেজ, কেন্দ্রীয় নেতারা রাজশাহীতে অবস্থান করছেন নিজ গ্রামে সংবর্ধিত সিংড়ার মেয়ে বিচারপতি ফাহমিদা কাদের তেঁতুলিয়ায় ভ্রাম্যমাণ আদালতে অর্থদন্ড
গোদাগাড়ীতে হাতপাখা শেষ ভরসা, লাগানো ধানের জমি সেচের অভাবে ফেঁটে যাচ্ছে।

গোদাগাড়ীতে হাতপাখা শেষ ভরসা, লাগানো ধানের জমি সেচের অভাবে ফেঁটে যাচ্ছে।

মোঃ হায়দার আলী রাজশাহী থেকেঃ বিদ্যুতের ভয়াবহ লোডশেডিং এর কারণে রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে কদর বেড়েছে হাতপাখা, মমবাতি ও কেরোসিন তেলের দাম। জনপদে দিন-রাত চলছে লোডশেডিং। বিদ্যুৎ কতক্ষণ থাকে না থাকে তা কেউ জানেন না। বিদ্যুৎ থাকছে অল্প সময়। চলে যাচ্ছে বারবার। এই যাওয়া-আসার খেলায় অতিষ্ঠ সাধারণ মানুষ। প্রচণ্ড খরতাপ আর ভ্যাপসা গরমে অতিষ্ট এলাকাবাসী। এ অবস্থায় গরম থেকে রক্ষা পেতে উপজেলাগুলোতে বেড়েছে হাতপাখা, মমবাতি ও কেরোসিন তেলের কদর। বিক্রিও বেড়েছে কয়েকগুণ, মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে কয়েকগুন।দেশিয় উপায়ে তৈরি এই হাতপাখা খুব বিক্র হচ্ছে। জেলা-উপজেলার বাসিন্দারা বলেন, দিনে বিদ্যুৎ কতবার যায় আর আসে, তার কোনো হিসাব নেই। বিদ্যুৎ চলে গেলে কখন আসবে কেউ জানে না। এই প্রচন্ড গরমে হাতপাখা ছাড়া উপায় কি? এলাকাবাসী জানান, কোনো উপায় না পেয়ে হাতপাখাই এখন আমাদের একমাত্র ভরসা। হাতপাখা দিয়ে বাতাস করে কোনোমতে শরীর রক্ষা করছেন বলে জানান তারা। এদিকে হাটবাজারে হাতপাখা বিক্রি বেড়ে গেছে কয়েকগুণ বলে জানান ব্যবসায়গণ। তাছাড়া অনেকে হাতপাখা ও মমবাতি ফেরি করে বিক্রি করছে।
দোকানদারগন জানান, প্রতিদিন হাতপাখার চাহিদা বাড়ছে। এছাড়া গ্রামে গৃহস্থরা এক সময় ফসল ঘরে তোলার ফাঁকে নিজেদের ব্যবহারের জন্য অবসর সময়ে হাতপাখা তৈরি করতেন। আধুনিকতার ছোঁয়ায় ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ থাকায় হাতপাখা তেমন আর তৈরি হতো না গ্রামে। কিন্তুু ঘন ঘন লোডশেডিংয়ের কারণে আবার গ্রামের লোকজন নিজ হাতে শরীরে বাতাস করার জন্য হাত পাখা তৈরি শুরু করছেন। প্রবল খরা এদিকে অন্য দিকে ভয়াবহ বিদ্যুতের লোডশেডিং এর কারনে বরেন্দ্রভূমিতে লাগানো রোপা আমন ধান সেচের অভাবে মরে যাচ্ছে, জমিতে ফাটল পেটে যাচ্ছে, গভীর রাত পর্যন্ত কৃষকদের ডিপটিউলের পাশে লম্বা লাইন দিয়ে পানির অন্য অপেক্ষা করতে দেখা গেছে। অনেকে পানি না পেয়ে সকালে ব্যর্থ হয়ে ফিরে আসছেন। কেন না বেশিরভাগ ডিপটিউবলের ড্রাইভারগণ নিজেদের খেয়াল খুশিমত পানি দিচ্ছেন। নিমঘুটুতে ২ জন আদিবাসীকৃষক মারা যাওয়ার পর সংশ্লিষ্ট ডিপ ড্রাইভার গ্রেফতার হওয়ার পর ড্রাইভারগণ কিছুটা কৃষকদের সাথে ভাল ব্যবহার করলেও এখন আবার শুরু করেছে কৃষকদের উপর অকথ্য নির্যাতন। বিভিন্ন খোড়া যুক্তিতে বিঘাপ্রতি টাকা উত্তোলন করে থাকেন গরীর কৃষকদের নিকট হতে। টাকা না দিলে পানি বন্ধ করে দেয়ারও বিস্তর অভিযোগ রয়েছে। উত্তোলনকৃত টাকা কোন স্বচ্ছ হিসেব থাকে না নামমাত্র খরচ করে সব লুটপাট হচ্ছে বলে ভুক্তভোগী কৃষকদের অভিযোগ। গত বুধবার গোদাগাড়ী উপজেলার আইনশৃঙ্খলা সভায় ডিপটিউবল ড্রাইভারদের দৌরাত্ম্য নিয়ে বিস্তর আলোচনা হয়েছে। অভিযোগ প্রমান হলে চাকুরি থেকে ছাঁটাইসহ শাস্তির আওতায় আনার আশ্বাস দিয়েছেন উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ জানে আলম ও উপজেলা চেয়ারম্যান মোঃ জাহাঙ্গীর আলম।

মোঃ হায়দার আলী
রাজশাহী।

Please Share This Post in Your Social Media






© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD