April 24, 2024, 6:44 am

বিজ্ঞপ্তি :
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দ্বায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
শিরোনাম :
কেশবপুরে বিএনপি নেতা পৌর কাউন্সিলর ব্যক্তিগত উদ্যোগে ৪ হাজার পিচ স্যালাইন বিতরণ কেশবপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে প্রতীক বরাদ্ধ,কে কোন প্রতীক পেল তানোরে ময়নার স্মরণকালের সর্ববৃহত শোডাউন গোদাগাড়ীতে সাড়ে ৬ কেজি হেরোইনসহ মাদক সম্রাট ঝাবু গ্রেফতার পাইকগাছায় ৬ কিলোমিটার সড়ক বদলে দিয়েছে লতা ইউনিয়নের যোগাযোগ ব্যবস্থা তীব্র তাপদাহে স্বরূপকাঠির জন জীবন অতীষ্ট বেড়েছে ডায়রিয়ার প্রকোপ শয্যা সংকটে মেজেতে বসে চিকিৎসা নিচ্ছেন রোগিরা সাভারের রানা প্লাজা ট্রাজেডির সেই ভয়াবহ দিবসটি হাজারো মানুষের মৃত্যুর ইতিহাস হাতীবান্ধায় ইস্তিসকার নামাজ আদায় বৃষ্টির আশায়  ভাবখালী আউলিয়ার বাজারের জলাবদ্ধতা নিরসনে আরসিসি ড্রেন নির্মাণ কাজের উদ্বোধন মুন্সীগঞ্জে টঙ্গীবাড়ী উপজেলায় দুই চেয়ারম্যান এবং দুই ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীর মনোনয়ন পত্র অবৈধ
পাইকগাছায় অপরিকল্পিত ভাবে নদীর মাঝখান দিয়ে শহর রক্ষা বাঁধঃ জমি দখল নিয়ে মাছ চাষ

পাইকগাছায় অপরিকল্পিত ভাবে নদীর মাঝখান দিয়ে শহর রক্ষা বাঁধঃ জমি দখল নিয়ে মাছ চাষ

ইমদাদুল হক,পাইকগাছা,খুলনা।।
খুলনার পাইকগাছায় শহর রক্ষার নামে নদীর মাঝখান দিয়ে বাঁধ দিতে না দিতেই বিশাল বিশাল খন্ড খন্ড দখল হয়ে গেছে। শুরু করেছে চিংড়ী- মাছ মাছ।
পাইকগাছা পৌরসভার প্রাণ কেন্দ্রে অবস্থিত শিবসা নদী। শিববাটী ব্রীজ থেকে হাড়িয়া নদী পর্যন্ত প্রায় ২০ কিলোমিটার ভরাট হয়ে গেছে। ভাটার সময় কোথাও পানি থাকে না। এ সুযোগে নদীর দু-ধার দিয়ে ইতোমধ্যে বিশাল এলাকা দখল হয়ে গেছে। নদীতে পানি বৃদ্ধি পেলে পৌরসভার কিছু নিচু এলাকায় পানি উঠে।এজন্য দাবী উঠেছে শহর রক্ষা বাঁধের। কয়েক মাস আগে পাইকগাছা পৌর কতৃপক্ষ শহর রক্ষা ব্াঁধের পরিকল্পনা গ্রহন করে। সরকারের অনুমতি ছাড়াই নদীর কুলে বাঁধ না দিয়ে অপরিকল্পিত ভাবে শিবসা ব্রিজ থেকে থানা পর্যন্ত ৯ ‘শ মিটার নদীর মাঝখান দিয়ে বাঁধ তুলেছে। ফলে শ’শ বিঘা জমি বাঁধের বাইরে পড়েছে।যা ইতোমধ্যে একটি ভুমি দখল চক্র খন্ডে খন্ডে বেঁধে দখল করেছে। যেখানে শুরু করেছে চিংড়ি বা মাছ চাষ। কেউ কেউ তৈরী করছে স্থাপনা। এব্যাপরে পাইকগাছা উপজেলা নাগরিক অধিকার ববাস্তবায়ন কমিটির সভাপতি অ্যাডভোকেট প্রশান্ত কুমার মন্ডল বলেন, সরকারের অনুমতি ছাড়াই অবৈধভাবে শহর রক্ষা বাঁধ দেয়ার নামে নদী দখল করা হচ্ছে। এখন নদী সংকীর্ণ হওয়ায় পৌরবাসী আরোও দ্রুত তলিয়ে যাবে। এব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন।পৌর প্যানেল মেয়র শেখ মাহবুবুর রহমান রঞ্জু বলেন, এটা সাময়িক বাঁধ। জমি দখলের কথা স্বীকার করে তিনি বলেন, তাদের নিষেধ করা হয়েছে। একবার তাদের বাঁধও কেটেও দেয়া হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মমতাজ বেগম বলেন,অবৈধভাবে সরকারী সম্পত্তি দখলের কোন সুযোগ নেই। আমি শুনেছি এবং এবাপারে তদন্ত করে অবৈধ দখলদারদের বিরুদ্ধে দ্রুত আইগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media






© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD