July 14, 2024, 10:21 pm

বিজ্ঞপ্তি :
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দ্বায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
শিরোনাম :
খগাখড়িবাড়ী বক্স কালভাট ঝু*কিপূর্ণ হওয়ায় পথচারী  চলাচলে দূ*র্ভোগ হারাদিঘী দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয় তেঁতুলিয়ায় প্রধান শিক্ষকের বিরু*দ্ধে অভিযোগের তদন্তে জেলা শিক্ষা অফিসার নড়াইলে ইয়া*বা ট্যাবলেটসহ একজন গ্রে*ফতার আশুলিয়ায় ৮ বছরের শিশুর রহ*স্যজনক মৃ*ত্যু-বাড়ির সেফটি ট্যাংকি থেকে লা*শ উদ্ধার কোটা বিরো*ধী আ*ন্দোলনের নামে মুক্তিযোদ্ধা ও স্বাধীন দেশ নিয়ে ক*টুক্তিকারীদের দৃষ্টান্তমুলক শা*স্তি দাবি করেছেন- লাভলু নড়াইলে কলেজ ছাত্র চয়ন মাঝির আত্মহ*ত্যা ঝিনাইদহে মাদ*কদ্রব্য অ*পব্যবহার ও অ*বৈধ পা*চাঁরবিরোধী র‌্যালী অনুষ্ঠিত স্বরূপকাঠিতে ইয়া*বা দিয়ে প্রতিপক্ষকে ফাঁ*সাতে গিয়ে নিজেরাই ফেঁ*সে গেল চাঁপাইনবাবগঞ্জ মধুমালা রেডিও ক্লাবের বৃক্ষরোপণ বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে বসতঘর পু*রে ছাই ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষ*তি
ব্রিজ নির্মানের কাজ ফেলে রাখায় শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসীর চরম দুর্ভোগ

ব্রিজ নির্মানের কাজ ফেলে রাখায় শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসীর চরম দুর্ভোগ

স্বরূপকাঠি (পিরোজপুর) প্রতিনিধি//

স্বরূপকাঠি উপজেলার সুটিয়াকাঠি এলাকায় ব্রিজ নির্মানের কাজ দুই
বছর ধরে ফেলে রাখায় চরম দুর্ভোগের শিকার হচ্ছে স্কুল কলেজের শিক্ষার্থীসহ
সাধারন মানুষ। নান্দুহার ইউনাইটেড বালিকা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের পাশে
ব্রিজটি নির্মানের নামে ২০২০ সালের এপ্রিল মাস থেকে ব্রিজটি ভেঙে
ফেলা রাখা হয়েছে। ওই সময়ে চলাচলের জন্য বিদ্যালয়ের সামনে একটি অস্থায়ী
কাঠের সাঁকো নির্মান করা হয়। সে সাঁকোও এখন ভেঙে চলাচলের অযোগ্য
হয়ে পড়েছে। জীবনের ঝুকি নিয়ে পার হতে হচ্ছে বিদ্যালয়ের ৫ শতাধিক শিশু
শিক্ষার্থীসহ এলাকাবাসী।
সরেজমিনে ওই এলাকায় গেলে নান্দুহার ইউনাইটেড বালিকা মাধ্যমিক
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. মনিরুল ইসলাম জানান, সুটিয়াকাঠি থেকে
গৌরঙ্গের বাজার সড়কটি অত্যান্ত গুরুত্বপুর্ন। ওই সড়কটির সাথে সংযোগ
রয়েছে বানারীপাড়ার বিশারকান্দি হয়ে টুঙ্গিপাড়ার । ওই সড়কের ২৭০০মিটার
চেইনেজে বিদ্যালয়ের পাশে ২৩ মিটার দীর্ঘ ব্রিজটি নির্মানের জন্য স্থানীয়
সরকার প্রকৌশল অধিদফতর ‘দেশের দক্ষিনাঞ্চলের আয়রন ব্রিজ
পুনঃনির্মান/পুনর্বাসন (আইবিআরপি)’ প্রকল্পের আওতায় প্রকল্প গ্রহন
করে। নির্মানের কার্যাদেশ পায় খুলনার টুটপাড়া এলাকার মেসার্স জিয়াউল
ট্রেডার্স। ২০২০ সালের এপ্রিল মাসে কাজ শুরু করে। নির্মানের জন্য ওই সময়ের ব্রিজটি ভেঙে বিদ্যালয়ের সামনে একটি অস্থায়ী সাঁকো নির্মান করে দেন। এরপর তারা কিছু পাইল নির্মান করে হঠাৎ করে কাজ বন্ধ করে সব মালামাল নিয়ে চলে যায়। আর তারা কাজের স্থানে ফিরে আসেনি। আসছি আসব করে ঠিকাদার আজো আসছে না। স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদফতরের সাথে যোগাযোগ করা হলেও কোন ফলাফল হচ্ছে না।
ইতোমধ্যে অস্থায়ী সাঁকোটিও ভেঙে নড়বরে হয়ে গেছে। বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে সুপারী গাছ দিয়ে কয়েকবার জোড়া তালি দিয়ে শিক্ষার্থী সহ লোকজন চলাচল ব্যবস্থা করা হলেও বর্তমানে এর অবস্থা অত্যান্ত নাজুক। ওই সাঁকো দিয়ে প্রতিদিন জীবনের ঝুকি নিয়ে প্রাথমিক ও মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, শিশু, বৃদ্ধ
চলাচল করছে। প্রতিদিন বিদ্যালয় শুরু ও ছুটির সময় একজন শিক্ষককে দাড় করিয়ে রাখতে হয়। যেহেতু একটি গুরুত্ব সম্পন্ন ব্রিজ সে কারনে সার্বক্ষনিক লোকজন চলাচল করে। যে কোন সময় বড়ধরনের দুর্ঘটনার আশংকা করা হচ্ছে। সে কারনে ব্রিজটি দ্রুত নির্মান করার জন্য বিভিন্ন দফতরে যোগাযোগ করেও কোন লাভ হচ্ছে না।
দীর্ঘ সময় কাজ ফেলে রাখার বিষয়ে স্বরূপকাঠির স্থানীয় সরকার প্রকৌশল
অধিদফতরের উপজেলা প্রকৌশলী শেখ তৌফিক আজিজের সাথে কথা বললে
তিনি জানান ওই প্রতিষ্ঠানের পক্ষে মো. মাসুম কাজটি শুরু করে ফেলে
রেখেছেন। বহুবার তাকে মৌখিক ও চিঠির মাধ্যমে তাগিদ দেওয়া সত্যেও
তিনি কাজ করছেন না। যেহেতু কাজটি পিরোজপুরের নির্বাহী প্রকৌশলীর
দফতর থেকে কার্যাদেশ দেওয়া হয়েছিল সে কারনে কার্যাদেশ বাতিলসহ প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহনের জন্য পিরোজপুর এলজিইডির নির্বাহী
প্রকৌশলীর বরা বরে সুপারিশ পাঠানো হয়েছে।###

Please Share This Post in Your Social Media






© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD