মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৪:৪৯ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
আজ শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আশুলিয়ায় কুকুরের মাংস দিয়ে বিরায়ানী বিক্রির অভিযোগে ১ জন আটক পাইকগাছা থানার আসাদুজ্জামান ও মোঃ নাসির উদ্দিন খুলনা জেলা শ্রেষ্ট কর্মকর্তা নির্বাচিত যে কোন দুর্যোগে সিপিপি’র কর্মীরা জীবন বাজী রেখে মানুষের কল্যানে কাজ করেন- এমপি- বাবু খুলনার দক্ষিঞ্চালে মৌসুমের শুরুতেই ভাইরাসে মরে যাচ্ছে চিংড়ি মাছ; দুশ্চিন্তায় চাষিরা বিরামপুরে বোরো ধান সংগ্রহে উন্মক্ত লটারির মাধ্যমে কৃষক নির্বাচন ঝিনাইদহে মেয়র প্রার্থীর ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে হামলার প্রতিবাদে শান্তি মিছিল নড়াইলে ডিবি পুলিশের অভিযানে ফেনসিডিল সহ আটক ১ বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা জাতীয় গোল্ডকাপ ফুটবল টুর্নামেন্টের শুভ উদ্ভোধন ধামইরহাটে র‌্যাবের অভিযানে গাঁজাসহ ব্যবসায়ি আটক
তানোরের রাজনৈতিক অঙ্গনে বিদায়ের সূর

তানোরের রাজনৈতিক অঙ্গনে বিদায়ের সূর

আলিফ হোসেন, তানোর: রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) সংসদীয় আসনের নির্বাচনী এলাকার রাজনৈতিক অঙ্গনে অনেক নেতার মধ্যে বিদায়ের সূর বেজে উঠেছে। জানা গেছে, ক্ষমতাসীন দল, বিরোধীদল ও রাস্তার বিরোধী দলের প্রভাবশালী প্রায় হাফডজন নেতা ইমেজ সঙ্কট ও জনবিচ্ছিন্ন হয়ে রাজনীতি থেকে ক্রমেই দুরে সরে যাচ্ছে বলে নিজ দলের নেতা ও কর্মী-সমর্থকদের মনে শঙ্কা দেখা দিয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে তৃণমূলমূখী হতে না পারায় নিজ দলের নেতাকর্মী ও সাধারণ মানুষের মধ্যে দেখা দিয়েছে তাদের চরম ইমেজ সঙ্কট। ফলে এসব নেতার রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ নিয়ে নিজ দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে গভীর শঙ্কা, উদ্বেগ-উৎকন্ঠা দেখা দিয়েছে। এসব নেতার রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ অনেকটাই অনিশ্চিত ও অন্ধকারে ডুবে যেতে শুরু করেছে। নিজ দলে তাদের টিকে থাকায় কঠিন হয়ে পড়েছে। ইতিমধ্যে এসব নেতার বিকল্প নেতৃত্বের সন্ধান ও বিকল্প নেতৃত্ব দিতে নিজ দলের তৃণমূলের নেতাকর্মীরা দলের হাইকমান্ডের কাছে আবেদন-নিবেদন করে চলেছেন। সংশ্লিষ্ট এলাকার রাজনৈতিক বিশ্লেষক, সচেতন মহল, আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জামায়াত ও জাতীয় পার্টিসহ বিভিন্ন দলের তৃণমূলের নেতাকর্মী এবং সাধারণ মানুষের সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য পাওয়া গেছে। এদিকে এমন প্রতিকুল অবস্থার মধ্যেও রাজশাহী-১ আসনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও মুন্ডুমালা পৌর মেয়র গোলাম রাব্বানি এবং বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান ও সাবেক ডাকমন্ত্রী ব্যারিস্টার আমিনুল হক জনমত জরিপে এগিয়ে এবং তৃণমূলে পচ্ছন্দের শীর্ষে রয়েছে বলে প্রচার আছে।
জানা গেছে, দেশে ওয়ান ইলেভেন পরবর্তী প্রেক্ষাপট, আত্মগোপণ, দলীয় মনোনয়নে বিজয়ী হয়ে নেতাকর্মী ও জনগণের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা না করে হাইব্রিড মতলববাজদের অধিক মূল্যায়ন ও তৃণমূলে প্রায় জনবিচ্ছিন্ন হয়ে হারিয়ে যেতে বসেছে। এদিকে ফের ইফতার রাজনীতিতে পূর্ণ উদ্যমে মাঠে নামার পরও বেকায়দায় পড়েছে প্রধান দুই রাজনৈতিক দলের একাধিক নেতা কেউ কেউ নিজ দলের নেতাকর্মীদের বাধার মূখেও পড়েছে। ফলে আগামি দিনে তাদের রাজনৈতিক ভবিষ্যৎ অনেকটা অন্ধকার হবে বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করছে। এদিকে তৃণমূলের নেতাকর্মীরা এসব নেতাদের বাদ দিয়ে তরম্নণ, মেধাবী ও পরিচ্ছন্ন ব্যক্তি ইমেজের নেতৃত্ব দাবি করেছে।
খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, তানোরে আওয়ামী লীগ, বিএনপি, জামায়াত ও জাতীয় পার্টির অনেক নেতার মধ্যে বিদায় ও বিষাদের সুর বেজে উঠেছে। সূত্র জানায়, সরকারি গুদামে চাল-ধান ও গম বাণিজ্য, নিয়োগ বাণিজ্য, গভীর নলকুপ অপারেটর-অটো স্ট্যান বাণিজ্য, বিভিন্ন বিভাগের ঠিকাদারী নিয়ন্ত্রণ ইত্যাদি নিয়ে ড়্গমতাসীন দলের অনেক নেতা জনবিছিন্ন হয়ে নিজ দলের নেতাকর্মীদের কাছে গলার কাঁটা হয়ে উঠেছে। ওদিকে মহাজোট সরকার ক্ষমতায় আসার পর বিএনপির কিছু নেতা আওয়ামী লীগের সঙ্গে গোপণ আঁতাত করে লাখ লাখ টাকা পকেটস’ করেছেন। কেউ কেউ আবার মামলা মোর্কদমা এড়িয়ে নিরাপদ থেকে আওয়ামী লীগের সঙ্গে গোপণ আঁতাত করে নিজেদের ব্যবসা-বাণিজ্য ও ধন-সম্পদ রক্ষায় মরিয়া হয়ে আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারকদের দুয়ারে দুয়ারে ধর্ণা দিয়েও ব্যর্থ হয়ে রাজনীতি থেকে ক্রমেই দুরে সরে যাচ্ছে। আওয়ামী লীগ ও বিএনপির দাপট দেখিয়ে চলা এসব নেতার অনেকেই এখন নিজেদের ভবিষ্যৎ নিরাপদ করার প্রসত্ততিতে মহাব্যস’ রয়েছে। ইতমধ্যে অনেকে নিজ এলাকা ছেড়ে রাজশাহী শহর ও ঢাকায় চলে যাওয়ার প্রসত্ততি নিচ্ছেন। কেউ আবার ক্ষমতাসীন দলের ছায়াতলে আশ্রয় নেয়ার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে। এসব কারণে ইতিপূর্বে তানোরে সরকারবিরোধী তেমন কোনো কর্মসূচি চোখে পড়েনি। এব্যাপারে একাধিকবার যোগাযোগের চেস্টা করা হলেও দায়িত্ব্বশীল কারো কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

Please Share This Post in Your Social Media






© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD