July 17, 2024, 10:58 am

বিজ্ঞপ্তি :
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দ্বায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
শিরোনাম :
নড়াইলের মধুমতি নদী থেকে গ*লিত ম*রদেহ উদ্ধার ৬ মিনিটেই মিলছে নির্ভুল জন্ম নিবন্ধন সনদ চারঘাটে গরুর লাম্পি স্কিন ডিজিজ রোগের প্রাদু*র্ভাব বানারীপাড়ায় বিশারকান্দিতে ৫০ বছর ধরে ভাসমান সবজি চাষে সফল চাষীরা আশুলিয়ায় তিতাস গ্যাসের ৫ শতাধিক বাসা বাড়ির অ*বৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন টুরিস্ট পুলিশ ঢাকা রিজিয়ন এবং টুর অপারেটর এসোসিয়েশন অফ বাংলাদেশ এর মত বিনিময় গোদাগাড়ীতে গবাদিপশুর ল্যাম্পি স্কিন ডিজিজ সম্পর্কে উঠান বৈঠক, মেডিকেল ক্যাম্প পরিচালিত পাইকগাছায় বিপুল পরিমাণ কারেন্ট জাল জ*ব্দ পাইকগাছায় পানিতে ডু*বে শিশুর মৃ*ত্যু জাতীয় নৃত্য প্রতিযোগিতায় ঝালকাঠির মেয়ে সুকন্যার স্বর্ণপদক জয়
মোংলায় বাংলাদেশ সহ ৬ দোকানে আগুন ৩০ লাখ টাকার ক্ষতি

মোংলায় বাংলাদেশ সহ ৬ দোকানে আগুন ৩০ লাখ টাকার ক্ষতি

মোংলা প্রতিনিধি।।
মোংলায় আগুনে পুড়ে গেছে হোটেলসহ ৮টি দোকান। সোমবার বিকেলে সোয়া তিনটায় স্থায়ী বন্দর বাস ষ্ট্যান্ড এলাকার হোটেল ও দোকানে এ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। টানা এক ঘন্টা প্রচেষ্টার পর বিকেল সোয়া ৪টায় আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আনেন ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট।
মোংলা ইপিজেড ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনের সিনিয়র ষ্টেশন ম্যানেজার মোঃ আরবেজ আলী জানান, সোমবার বিকেল সোয়া তিনটার দিকে স্থায়ী বন্দর বাস ষ্ট্যান্ড এলাকার সোনার বাংলা হোটলে বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুন লাগে। এরপর তা মুহুর্তের মধ্যে ছড়িয়ে পড়ে পাশের হোটেল ও দোকানগুলোতে। পরে খবর পেয়ে ইপিজেড ফায়ার সার্ভিস, বাগেরহাট সদর ফায়ার সার্ভিস ও মোংলা ফায়ার সার্ভিস ইউনিট এক ঘন্টা চেষ্টা চালিয়ে বিকেল সোয়া ৪টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণ আনেন। ততক্ষণে একে একে আগুনে পুড়ে ছাই হয়ে যায় তিনটি হোটেল ও ৫টি কনফেকশনারি দোকান। তবে এ সময় কেউ দগ্ধ হয়নি বলেও জানান ফায়ার সার্ভিস। আগুনে ৩টি হোটেল ও ৫টি দোকান পুড়ে ক্ষতি হয়েছে প্রায় ৩০ লাখ টাকার। তাৎক্ষণিক খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান পৌর মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আঃ রহমান। তখন তিনি ক্ষতিগ্রস্তদের আর্থিক সহায়তা প্রদাণেরও আশ্বাস দেন। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কমলেশ মজুমদার বলেন, ক্ষতিগ্রস্ত হোটেল ও দোকান মালিকদেরকে প্রাথমিকভাবে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে এবং পরবর্তীতে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে সরকারী সহায়তা প্রদাণ করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media






© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD