July 14, 2024, 10:25 pm

বিজ্ঞপ্তি :
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দ্বায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
শিরোনাম :
খগাখড়িবাড়ী বক্স কালভাট ঝু*কিপূর্ণ হওয়ায় পথচারী  চলাচলে দূ*র্ভোগ হারাদিঘী দ্বি-মুখী উচ্চ বিদ্যালয় তেঁতুলিয়ায় প্রধান শিক্ষকের বিরু*দ্ধে অভিযোগের তদন্তে জেলা শিক্ষা অফিসার নড়াইলে ইয়া*বা ট্যাবলেটসহ একজন গ্রে*ফতার আশুলিয়ায় ৮ বছরের শিশুর রহ*স্যজনক মৃ*ত্যু-বাড়ির সেফটি ট্যাংকি থেকে লা*শ উদ্ধার কোটা বিরো*ধী আ*ন্দোলনের নামে মুক্তিযোদ্ধা ও স্বাধীন দেশ নিয়ে ক*টুক্তিকারীদের দৃষ্টান্তমুলক শা*স্তি দাবি করেছেন- লাভলু নড়াইলে কলেজ ছাত্র চয়ন মাঝির আত্মহ*ত্যা ঝিনাইদহে মাদ*কদ্রব্য অ*পব্যবহার ও অ*বৈধ পা*চাঁরবিরোধী র‌্যালী অনুষ্ঠিত স্বরূপকাঠিতে ইয়া*বা দিয়ে প্রতিপক্ষকে ফাঁ*সাতে গিয়ে নিজেরাই ফেঁ*সে গেল চাঁপাইনবাবগঞ্জ মধুমালা রেডিও ক্লাবের বৃক্ষরোপণ বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জে বসতঘর পু*রে ছাই ১০ লক্ষাধিক টাকার ক্ষ*তি
মোবাইলে প্রেমের সূত্রে দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার তরুণী, গ্রেফতার ২

মোবাইলে প্রেমের সূত্রে দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার তরুণী, গ্রেফতার ২

মোঃ বাবুল হোসেন পঞ্চগড় ঃ

মোবাইল ফোনে প্রেমের সূত্র ধরে নরসিংদীর এক তরুণী দলবদ্ধ ধর্ষণের শিকার হয়েছেন। এ ঘটনায় দুজনকে আটক করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) রাতে ওই তরুণী পঞ্চগড়ের বোদায় ধর্ষণের শিকার হন। পরদিন শনিবার রাতে নির্যাতিতা বোদা থানায় চারজনের নাম উল্লেখসহ দুই-তিনজনকে অজ্ঞাত পরিচয় উল্লেখ করে মামলা করেছেন।

মামলা হওয়ার পর অভিযান চালিয়ে কথিত প্রেমিক আব্দুল মালেক ও তার সহযোগী আলমগীর হোসেনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তাদের রোববার (১১ সেপ্টেম্বর) বিকেলে আদালতের নির্দেশে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

মামলার আসামিরা হলেন – বোদা উপজেলার সিপাইপাড়া এলাকার মহিদুলের ছেলে কথিত প্রেমিক আব্দুল মালেক (২৫), তার বন্ধু প্রসাদ খাওয়া এলাকার রহিদুলের ছেলে মো. আপন (২৫), আরেক বন্ধু একই এলাকার মকবুল হোসেনের ছেলে আশরাফুল ইসলাম (৩০) এবং বামনপাড়া এলাকার সামসুদ্দিনের ছেলে আলমগীর হোসেন (২২)। আপন ও আশরাফুল পলাতক।

মামলা সূত্রে জানা যায়, আব্দুল মালেকের সঙ্গে মোবাইল ফোনে প্রেম হয় ওই তরুণীর। প্রায় নয় মাসের প্রেমের সূত্র ধরে এবং প্রেমিকের বিয়ের আশ্বাসে শুক্রবার সন্ধ্যায় পঞ্চগড়ের বোদায় চলে আসেন তিনি। পরে আলমগীর হোসেনের সহযোগিতায় প্রেমিক মালেক বোদার প্রসাদ খাওয়া এলাকার একটি বাড়িতে নিয়ে যান তাকে। সেখানে আশরাফুল ও আপন নামে অন্য দুই তরুণ আসেন।

বাড়িতে অন্য কোনো লোক না থাকায় সেখানে থাকতে রাজি হননি তরুণী। পরে বিয়ের জন্য রাতেই তাকে কাজি অফিসে নিয়ে যাওয়ার কথা বলে পাশের একটি আমবাগানে নিয়ে মালেক, আপন ও আশরাফুল ধর্ষণ করেন। এ সময় ইজিবাইক চালক আলমগীর হোসেনসহ আরো দুই-তিনজন পাহারায় ছিলেন।

এদিকে মেয়েটির চিৎকার-চেঁচামচিতে আশপাশের লোকজন এগিয়ে এলে ওই তরুণীকে রেখে পালিয়ে যান তারা।

বোদা থানার ওসি সুজয় কুমার রায় বলেন, মামলার প্রধান আসামি মালেক ও তার সহযোগী আলমগীরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ভিকটিমকে বহনকারী একটি ইজিবাইক জব্দ করা হয়েছে। গ্রেফতার দুজন আদালতে স্বীকারাক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। অন্য আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

ধর্ষণের শিকার তরুণীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। খবর পেয়ে তার অভিভাবকরা থানায় এসেছেন। তরুণীকে তার পরিবারের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে বলে জানান ওসি সুজয় কুমার রায়।

Please Share This Post in Your Social Media






© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD