July 18, 2024, 8:01 am

বিজ্ঞপ্তি :
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দ্বায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
শিরোনাম :
পানছড়িতে মা মনসা পুঁথি পাঠের আসর জমে উঠেছে গোপাল হাজারীর বাড়িতে কোট বি*রোধীদের উপর হাম*লার প্রতি*বাদে ঝিনাইদহে ছাত্রদলের বিক্ষো*ভ নবাগত গোদাগাড়ী উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে ফুলদিয়ে শুভেচ্ছা জানালেন যুবলীগ সভাপতি তানোরে বঙ্গবন্ধু অনূর্ধ্ব-১৭ ফুটবল টুর্নামেন্ট সম্পন্ন নড়াইল শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্র পৌর মেয়র আনজুমান আরা সভাপতি নির্বাচিত বাংলাদেশ জমইয়াতে হিজবুল্লাহর নায়বে আমীর হযরত মাওলানা শাহ মোহাম্মদ মোহেব্বুল্লাহর ইন্তে*কাল ধামইরহাটে পরিকল্পনা প্রতিমন্ত্রী শহীদুজ্জামানের গাছ রোপন লালমনিরহাটে ফেন্সিডিল, মোটরসাইকেলসহ দুইজন আ*টক  পুঠিয়ায় পূর্ব শ*ত্রুতার জেরে মসজিদের ইমামকে হ*ত্যার চেষ্টা নিহ*ত শিক্ষার্থীদের স্মরণে গাজীপুরে গায়েবানা জানাজা
হবিগঞ্জে বিদ্যুৎ বিড়ম্বনায় হাজার হাজার গ্রাহক

হবিগঞ্জে বিদ্যুৎ বিড়ম্বনায় হাজার হাজার গ্রাহক

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি।।
হবিগঞ্জ জেলায় বিদ্যুৎ বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন হাজার হাজার গ্রাহক। চাহিদার তুলনায় কম উৎপাদন ও টমটম গ্যারেজে অবৈধ বিদ্যুৎ ব্যবহারের কারণে বাড়ছে গ্রাহকদের ভোগান্তি।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, হবিগঞ্জ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের ফিডারওয়ারী এলাকা ও হবিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির ৯টি উপজেলায় প্রতিদিন ১৫০ মেঘাওয়াট বিদ্যুতের চাহিদা রয়েছে । তবে এসব এলাকায় প্রতিদিন বিদ্যুতের বরাদ্দ রয়েছে ৯ মেগাওয়াট । যে কারনে জেলা জুড়ে ৬০ মেঘাওয়াট বিদ্যুতের ঘাটতি দেখা দিয়েছে। বিদ্যুতের এ অসহনী ঘাটতি পূরণে প্রতিদিন গড় ৫-৬ ঘন্টা লোডশেডিংয়ের কবলে পড়ে অন্ধকারে থাকতে হচ্ছে জেলাবাসীকে।

এছাড়া, হবিগঞ্জ শহরসহ ৯ উপজেলায় রয়েছে প্রায় ২ শতাধিক টমটম গ্যারেজ। প্রতিদিন এসব গ্যারেজে থাকা প্রায় ৫ হাজারের বেশি টমটম চার্জ দেয়া হচ্ছে। আর এসব টমটম গ্যারেজে ব্যবহৃত প্রায় ৬ মেঘাওয়াট বিদ্যুৎ। এতে প্রতিনিয়ত বিদ্যুতের ঘাটতির সৃষ্টি হচ্ছে। যদিও চাহিদা পূরণে বিদ্যুৎ বিভাগকেই দায়ী করছেন অনেক গ্রাহক।

একটি সূত্র জানায়, হবিগঞ্জ পৌরসভার অধিনে ১২শ টমটম থাকলেও শহরে প্রতিদিন ২ হাজারেরও বেশী ব্যাটারী চালিত টমটম চলাচল করছে। এসব টমটমের ব্যাটারি চার্জ দেয়ার জন্য ছোট বড় মিলিয়ে শহরের চিড়াকান্দি, মাধুপিয়া এলাকা, খাদ্য গুদাম রোড, ২নং পুল, তেঘরিয়া আবাসিক এলাকা, পোদ্দার বাড়ি, মোহনপুর, পৈল রোড, শশ্মশানঘাট, পাথাড়িয়া, আলমপুর, উমেদনগরসহ বিভিন্ন স্থানে প্রতিদিন প্রায় ১ হাজার টমটম চার্জ দেয়া হচ্ছে। এছাড়া জেলার ৯ উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় গড়ে উঠেছে কমপক্ষে আরও দেড় শতাধিক টমটম গ্যারেজ। আর এসব টমটম গ্যারেজে প্রতিদিন দেখা যায় হাজারেরও বেশি টমটম। আবার অনেকেই বাসা-বাড়িতে, দোকানের দিচ্ছেন চার্জ ।

ফলে এসব টমটম চা দিতে প্রতিদিন ৪ মেগাওয়াটেরও 8 বেশি বিদ্যুৎ ব্যবহার হচ্ছে। যে কারণে প্রতিদিন বিদ্যুতের ঘাটতি দেখা দিচ্ছে। তবে এসব টমটম
গ্যারেজে বিভিন্ন সময় ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হলেও ধমানো যাচ্ছে না বিদ্যুতের অবৈধ ব্যবহার।

অন্যদিকে নাম মাত্র মিটার ব্যবহার করে এসব টমটম হাজার হাজার টাকার বিদ্যুৎ কিছু কর্মচারীদেরকে ম্যানেজ করেই তাদের এসব ব্যবসা চলছে বলে
অভিযোগ তুলেছেন গ্রাহকরা।

হবিগঞ্জ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড জানায়, শহরের ৭টি িএলাকায় প্রতিদিन মেঘাওয়াট বিদ্যুতের চাহিদা দিন রয়েছে ১১০ মেঘাওয়াট বিদ্যুৎ। যে কারনে মেঘাওয়াট বিদ্যুতের ঘাটতি রয়েছে। আর বিদ্যুতের ঘাটতি থাকায় প্রতিদিন ৫-৬ ঘন্টা লোডশেডিং দেয়া হচ্ছে।
হবিগঞ্জ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির প্রতিদিন বিদ্যুতের চাহিদা রয়েছে১৩৫ মেঘাওয়াট।৮০ মেঘাওয়াট বিদ্যুৎ। যে কারণে ৫০ মেগাওয়াট বিদ্যুতের ঘাটতি দেখা দিয়েছে। আর বিদ্যুতের এ ঘাটতি পুরণে উপজেলা গুলোতে অসহনীয় লোডশেডিংয়ের সৃষ্টি হয়েছে।

হবিগঞ্জ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ ইমাম হোসেন জানান, ৭টি ফিডার এলাকায় প্রতিদিন ১৫-১৬ মেঘাওয়াট বিদ্যুতের চাহিদা থাকলেও বরাদ দেখা হচ্ছে ১-১০ মেঘাওয়াট বিদ্যুৎ।
তিনি বলেন, শহরের বিভিন্ন এলাকায় প্রায় ১০টি টমটম গ্যারেজ রয়েছে।

সৈয়দ মশিউর রহমান হবিগঞ্জ।।

Please Share This Post in Your Social Media






© প্রকাশক কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD