মঙ্গলবার, ২৬ অক্টোবর ২০২১, ১২:২৭ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
জয়পুরহাটে র‌্যাবের অভিযানে ২ শত ৬৮ বোতল ফেন্সিডিলসহ আটক-২ হাজারো নেতাকর্মীদের ভালোবাসায় সিক্ত নৌকার মাঝি মাসুম ভূঁইয়া আশুলিয়ার এনায়েতপুরে এক যুবককে শ্বাসরোধ করে খুন কিশোর গ্যাং কর্তৃক খুন ধর্ষণসহ বাড়ছে বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড সাংবাদিক লিটন’সহ গণমাধ্যমের সবাইকে “অভিনন্দন ও শুভেচ্ছা” নওগাঁয় ফিটনেস লাইসেন্স ছাড়াই কারথানায় তৈরি হচ্ছে নারিকেল তেল কালীগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধার সন্তান সেজে হয়রানি, প্রতিবাদে গ্রামবাসীর সংবাদ সম্মেলন ও ঝটিকা মিছিল ফুলবাড়িয়ায় প্রতিবন্ধি শিক্ষার্থীরা পেল গিফট বক্স নড়াইলে অস্ত্র মামলায় যাবজ্জীবন র‌্যাব-১২’র অভিযানে পাবনার ভাঙ্গুড়ায় গাঁজাসহ ০৩ জন মাদক কারবারী আটক
কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীতে দেশের প্রথম হানাদার মুক্ত দিবস পালিত

কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীতে দেশের প্রথম হানাদার মুক্ত দিবস পালিত

মো; জুয়েল রানা কুড়িগ্রাম প্রতিনিধি : ১৪.১১.১৮
কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারীতে দেশের প্রথম হানাদার মুক্ত দিবস পালিত হয়েছে। ১৯৭১ সালের ১৪ নভেম্বর স্বাধীনতা যুদ্ধে দেশের প্রথম হানাদার মুক্ত হয় কুড়িগ্রামের ভুরুঙ্গামারী উপজেলা।
দিনটি উপলক্ষে ভুরুঙ্গামারী প্রেসক্লাবের উদ্যোগে বুধবার প্রেসক্লাব চত্বর থেকে একটি বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষীন শেসে ভুরুঙ্গামারী স্মৃতিস্তম্ভে পুস্প স্তবক অর্পন করা হয়। পরে প্রেসক্লাব চত্বরের মুক্তমঞ্চে ভুরুঙ্গামারী উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শংকর কুমার বিশ^াসের সভাপতিত্বে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিচারণমূলক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট জিলুফা সুলতানা, এএসপি শওকত আলী, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সিরাজুল ইসলাম টুকু, প্রেসক্লাব সভাপতি আনোয়ারুল হক, শিল্পকলা একাডেমীর সাধারণ সম্পাদক সরকার রাকীব আহমেদ জুয়েল প্রমূখ।
আলোচনা শেষে মুক্তিযুদ্ধসহ সমাজের বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিশেষ অবদানের জন্য ৮ ব্যক্তিকে ভুরুঙ্গামারী পাক হানাদার মুক্তদিবস পদক প্রদান করা হয়।
উল্লেখ্য, ১৯৭১ সালের ১৪ নভেম্বর এই দিনে মুক্তিযোদ্ধা ও মিত্র বাহিনী ৪টি গ্রুপে বিভক্ত হয়ে তিন দিক থেকে তীব্র আক্রমণ চালায়। তুমুল যুদ্ধ শেষে পাকবাহিনীরা রায়গঞ্জের দিকে পিছু হটলে মুক্তি বাহিনী ও মিত্র বাহিনী মিলে ভূরুঙ্গামারী দখলে নেয় এবং বর্তমান উপজেলা পরিষদের সামনে (তৎকালিন সিও অফিস) জাতীয় পতাকা উত্তেলন করে।

Please Share This Post in Your Social Media



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD