শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৮:৩২ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
ঝিনাইদহ জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য ফোরামের বিজয় ঝিনাইদহে স্বামীর লাঠির আঘাতে স্ত্রী নিহত নড়াইলের লোহাগড়া ১২টি ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে আ’লীগের ৪৩ বিদ্রোহীসহ ৬৭ জন প্রার্থী মহেশপুরে পরকীয়ার জের ধরে এক গৃহবধুকে পিটিয়ে হত্যা বীর মুক্তিযোদ্ধা উপজেলা সাবেক চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসেন সেরনিয়াবাতের রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন সুনামগঞ্জ সদরের নিয়ামতপুরে লাঙ্গলমার্কা কর্মীর হামলায় অটোরিক্সার কর্মী আহত রাজশাহীর কাটাখালী পৌর ফান্ড থেকে সাড়ে ৩ কোটি টাকা গায়েব ভোটের জোয়ারে আবারও এগিয়ে বাদল চেয়ারম্যান কাঁঠালে কামালের জন্য লাঙ্গলে ভোট জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা ডাঃ কে আর ইসলাম কুসুমপুরা ইউনিয়নকে মডেল ইউনিয়নে রূপান্তর করা হবে- এম এজাজ চৌধুরী
নড়বরে বাশের সাকোঁই ২উপজেলার মানুষে এক মাত্র উপরও ভরসা

নড়বরে বাশের সাকোঁই ২উপজেলার মানুষে এক মাত্র উপরও ভরসা

সৈকত আহমেদ বেলাল, জামালপুর
জামালপুরের মেলান্দহ-ইসলামপুর সংযোগ সড়কের হরকাখালের উপর নড়বড়ে একটি বাঁশের সাকোঁ দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে চলাচল করছে কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীসহ দুই উপজেলার প্রায় দেড় লক্ষাধিক মানুষ। নড়বড়ে এ বাঁশের সাকোঁর উপরও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে না গিয়ে অনেকে অতিকষ্টে সাকোঁর নিচ দিয়ে চলাচল করছেন।
মেলান্দহ-ইসলামপুর ২ উপজেলার সংযোগ সড়কের মাহমুদপুর-নোয়ারপাড়া ইউনিয়নের সীমান্ত এলাকায় প্রায় ১ যুগ আগে বন্যায় রাস্তাটি ভেঙে বড় গর্ত সৃষ্টি হয়। গর্তটি বিভিন্ন সময় ভাঙতে ভাঙতে বড় হয়ে খালে পরিণত হয়েছে। এটি বর্তমানে হরকাখাল নামে পরিচিত। কিন্তু ১ যুগেও ২ উপজেলার সংযোগ সড়কের ওই অংশে ব্রীজ নির্মাণ করা হয়নি। ফলে উভয় ২ অঞ্চলের মানুষের দূর্ভোগ চরমে উঠেছে।
জানা গেছে, স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর মেলান্দহ-ইসলামপুর উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসা কেন্দ্র মাহমুদপুর বাজার ও ধর্মকুড়া বাজারের মধ্যে ব্যবসা-বাণিজ্যের প্রসার ঘটাতে ধর্মকুড়া-মাহমুদপুর জিসিআর সড়ক নির্মাণ করে। সড়কটি বন্যায় ভেঙে যাওয়ায় হাজার হাজার পথচারী, কয়েকটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থী ও শত শত যানবাহন পায় ১ যুগ ধরে চরম দূর্ভোগ পোহাচ্ছে। শুকনো মওসুমে কোন রকমে চলাচল করা গেলেও বর্ষা মওসুমে দূর্ভোগের সীমা থাকেনা এ ২ অঞ্চলের মানুষের।
পথচারী আব্দুল হাই জানান, ২ উপজেলার সীমানা হওয়ায় হরকাখালের উপর কোন উপজেলাই একটি ব্রীজ নির্মাণ করছে না। ব্যবসায়ী আসলাম জানান, এ বছর বন্যার পানি না আসায় কষ্ট হলেও সাকোঁর নিচ দিয়ে যানবাহন ও পথচারী চলাচল করতে পারছে। বন্যার পানি আসলে ২ উপজেলার সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যানবাহন চলাচল বন্ধ হয়ে যায়। এতে ব্যবসা-বাণিজ্যের ব্যাপক ক্ষতি হয়। সাইদুর রহমান বলেন, বাঁশের সাকোঁটিও নড়বড়ে হয়ে গেছে। তাই পথচারীরা সাকোঁটির উপরও ভরসা করতে পারছেনা

Please Share This Post in Your Social Media



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD