বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:৩৫ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
আসন্ন ১০নং জামালপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ২বারের সফল মেম্বার আবারো টিউবওয়েল মার্কার সদস্য পদপ্রার্থী ফসলি জমিতে ইটভাটা-পরিবেশ দূষণ হলেও সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের নিরবতা নিয়ন্ত্রণহীন স্বর্ণের দাম-হাজার হাজার শ্রমিক বেকার হয়ে মানবেতর জীবনযাপন সুজানগরে পাট ব্যবসায়ী ও স্টেক হোল্ডারদের সাথে উদ্বুদ্ধকরণ সভা পাইকগাছার গড়ইখালী আলমশাহী ইনিস্টিউটের বার্ষিক ফলাফল ঘোষনা পুরস্কার বিতরণ আজ ঐতিহাসিক পাইকগাছার কপিলমুনি মুক্ত দিবস নড়াইলের লোহাগড়া ১২ ইউপিতে প্রতীক বরাদ্দ আগামী ২৬ নভেম্বর। নির্বাচন বগুড়ায় পুলিশের হয়রানি বন্ধে সাংবাদিক সম্মেলন নওগাঁর আত্রাইয়ে আইজিপি কাপ-২০২১ জাতীয় যুব কাবাডি প্রতিযোগিতার উদ্বোধন ঈদগাঁওর সার্বিক নিরাপত্তার নিশ্চিতে পুলিশের অভিযান আটক -২
সাভারে তিতাস গ্যাসের ১০০ কিলোমিটার সংযোগ বিচ্ছিন্ন-আবারও অবৈধ সংযোগ দেয়া হচ্ছে!

সাভারে তিতাস গ্যাসের ১০০ কিলোমিটার সংযোগ বিচ্ছিন্ন-আবারও অবৈধ সংযোগ দেয়া হচ্ছে!

হেলাল শেখঃ
ঢাকার সাভার জোনাল অফিস তিতাস গ্যাস টি এন্ড ডি কোম্পানী লিমিটেড এর বিভিন্ন এলাকায় অবৈধ প্রায় ১০০ কিলোমিটারেরও বেশি অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার পর আবারও মোটা অংকের টাকার বিনিময়ে বিভিন্ন অবৈধ সংযোগ দেয়া হচ্ছে বলে বৈধ গ্রাহকরা জানান।

বিশেষ করে এর আগে অবৈধ সংযোগ গ্যাস ব্যবহারকারী দোষীদের বিরুদ্ধে ৮টি মামলা রুজু করা হলেও অনেক গ্রাহকের বিল বকেয়া থাকায় সরকারের কোটি কোটি টাকা লোকসান হচ্ছে।

আজ সোমবার (৬ আগস্ট) জানা গেছে, সাভার ও আশুলিয়ার বিভিন্ন এলাকায় হাজার হাজার অবৈধ সংযোগের কারণে সরকারের কোটি কোটি টাকা লোকসান গুনতে হচ্ছে। একদিকে তিতাস কোম্পানির কর্মকর্তারা সংযোগ বিচ্ছিন্ন করছেন, অন্যদিকে আবার অবৈধভাবে সংযোগ দিয়ে অতিষ্ট করে তুলছে তিতাস কোম্পানীর কর্মকর্তাদের, এমনই তারা বলছেন।

এরই প্রেক্ষিতে কোম্পানীর বিশেষ অভিযান চালিয়ে কয়েক মাসে প্রায় ১০০ কিলোমিটার অবৈধ সংযোগ পাইপ উদ্ধার করা হয়েছে। তিতাসের এক কর্মকর্তা বলেন, এর আগে প্রায় প্রতিদিনই ১০ থেকে ১৫ কিলোমিটার অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার রেকর্ড রয়েছে তাদের এবং অবৈধ সংযোগ ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে থানায় ৮টি মামলা রুজু করা হয়েছে।

আশুলিয়া থানায় এক একটি মামলায় প্রায় ৫০জনকে আসামী করা হয়েছে। সুত্র জানায়, এলাকায় প্রায় এক লাখেরও বেশি তিতাস গ্যাসের সংযোগ রয়েছে। বিশেষ করে, গ্যাসের সংযোগ ব্যবহারকারী অনেকেই বলেন, আমরা এক একটি সংযোগ পেতে ৫০ থেকে ৬০ হাজার করে টাকা দিয়েছি তিতাস এর সংশ্লিষ্টদেরকে বলা হয়, আমাদের দ্রুতই এই গ্যাসের সংযোগ বৈধ করে দেওয়া হবে। এক একটা সংযোগের ব্যাপারে একাধিকবার টাকা নেওয়া হয়েছে বলে তাদের অনেকেরই দাবি। তাহলে প্রশ্ন কারা এই টাকা গ্রহণ করেছেন? এবং একাধিকবার টাকা নেওয়ার পরেও সেই সংযোগ আবার বিচ্ছিন্ন করা হয় কেন? ভূক্তভোগীদের দাবী-শুধু আমাদের বিরুদ্ধে মামলা কেন করছেন কেন? শুধুমাত্র আমাদের বিচার কেন করা হবে? সংশ্লিষ্ট যারা আছেন তিতাসের সাথে তাদেরকেও আইনের আওতায় আনা হোক।

সোমবার ৬ আগস্ট ২০১৮ইং সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, এখনও অনেক অবৈধ সংযোগ রয়েছে সাভার ও আশুলিয়ার বিভিন্ন এলাকায়। ৮ থেকে ৯ মাস বৈধ গ্রাহকের গ্যাস বিল বকেয়া রয়েছে। গত ৩ মাসে বিশেষ অভিযানে অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করায় বৈধ গ্রাহকদের চুলায় গ্যাস বৃদ্ধি পেয়ে ছিলো। এখন আবার যা তাই আগের মত গ্যাগ টিপটিপ করে জলছে। রাত ১২ টার পরে গ্যাস আসে আবার ভোর না হতেই চলে যায়।

জানা গেছে, ঢাকার শিল্পাঞ্চল সাভার, আশুলিয়ায় প্রায় ১ কোটি মানুষের বসবাস। সেখানে শিল্প কারাখানার শ্রমিক কর্মচারী ও নিম্ন আয়ের মানুষের সংখ্যাই বেশী। এ বিষয়ে গার্মেন্টস কর্মী শাহানাজ (৩৪) সাইফুল (৩৯) নাজমুল হোসেন (৩২) বলেন, সারাদিন অফিসে কাজ করে রাত ১০ টার পরে বাসায় ফিরে দেখা যায়, চুলার গ্যাস নেই, যারা বাসা ভাড়া নিয়ে বসবাস করছেন, তাদের সমস্যা একটু বেশি, সংযোগ বৈধ না অবৈধ তা তারা জানেন না, এখন অনেক বাসায় গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন তবুও বাসা ভাড়া কমানো হয়নি, কোনো কোনো বাসায় মাত্র ২০০ টাকা ভাড়া কম নেয়া হচ্ছে। কিন্তু এল. পি. গ্যাস এক বোতলের দাম ৯২০-৯৫০টাকা। অনেকের সাবেক ভাড়া গুনতে হচ্ছে। বাসা ভাড়াটিয়ারা বলেন, এসব দেখার কেউ নেই।

জানা গেছে, ঢাকার সাভার উপজেলার আশুলিয়ার ঘোষবাঘ, জামগড়া, ভাদাইল, চিত্রশাইল, বেরুণ ছয়তালা ও গুমাইলসহ বিভিন্ন এলাকায় তিতাস গ্যাস কোম্পানির ব্যাবস্থাপক মোঃ সিদ্দিকুর রহমানের নেতৃত্বে বিশেষ অভিযানে প্রায় প্রতিদিনই ১০ থেকে ১৫ কিলোমিটার অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে আসছিলেন। এখন অভিযান প্রায় বন্ধ রয়েছে বলে অনেকেই আবার নতুন করে অবৈধ সংযোগ নিচ্ছে।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সাভার আশুলিয়ায় প্রায় ১০০ কিলোমিটারেরও বেশি অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে বলে সুত্র জানায়।

আশুলিয়ার ইয়ারপুর ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালানো হলে, উক্ত এলাকায় সোর্স লাইনের সন্ধান পাওয়া যায়। এ পর্যন্ত প্রায় ১০০ কিলোমিটার অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়।

এসব অভিযানে উপস্থিত ছিলেন, সাভার তিতাস গ্যাস কোম্পানির ব্যাবস্থাপক মোঃ সিদ্দিকুর রহমান, উপ: ব্যাবস্থাপক হাজী আব্দুর রহিম, মোঃ হাসান, মোঃ আনিছুজ্জামান, মোঃ মান্নান, টেকনিশিয়ান মোঃ হাবিবুর রহমান, মোঃ গিয়াস উদ্দিন এবং আশুলিয়া থানা পুলিশের একাধিক টিম। এসব অভিযানের সময়ে তিতাস কোম্পানীর কর্মকর্তাদের নিরাপত্তার স্বার্থে কাজ করছেন পুলিশ প্রশাসন। এ বিষয়ে সাভার জোন তিতাস কোম্পানির ব্যাবস্থাপক মোঃ সিদ্দিকুর রহমান জানান, তিতাস কোম্পানির গ্যাস সরকারি সম্পদ, অবৈধভাবে যারা সংযোগ ব্যবহার করছে, তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে, ইতিপূর্বে অবৈধ সংযোগ ব্যবহারকারী দোষীদের বিরুদ্ধে থানায় ৮টি মামলা করা হয়েছে। এ মামলার মধ্যে আশুলিয়া থানার একটি মামলা নং-৪৭, তারিখ ১২/০৪/২০১৮ ইং। এই মামলায় ৪৭জনকে আসামী করা হয়েছে। উক্ত বিষয়ে তিতাস কোম্পানির টেকনিশিয়ান মোঃ হাবিবুর রহমান এ প্রতিনিধিকে জানান, গত ২-৩ মাসের অভিযানে প্রায় ১০০ কিলোমিটারেরও বেশি অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে এবং দোষীদের বিরুদ্ধে থানায় ৮টি মামলা করা হয়েছে। দোষী ব্যক্তি সে যেই হোক না কেন তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে। আর নতুন কোনো সংযোগ দেয়া হচ্ছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, না এখন আর নতুন কোনো সংযোগ দেয়া হচ্ছে না। আর যদি কেউ অবৈধ ভাবে সংযোগ ব্যবহার করে উক্ত মামলায় তাদের আটক করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD