শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৮:১৮ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
ঝিনাইদহ জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য ফোরামের বিজয় ঝিনাইদহে স্বামীর লাঠির আঘাতে স্ত্রী নিহত নড়াইলের লোহাগড়া ১২টি ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে আ’লীগের ৪৩ বিদ্রোহীসহ ৬৭ জন প্রার্থী মহেশপুরে পরকীয়ার জের ধরে এক গৃহবধুকে পিটিয়ে হত্যা বীর মুক্তিযোদ্ধা উপজেলা সাবেক চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসেন সেরনিয়াবাতের রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন সুনামগঞ্জ সদরের নিয়ামতপুরে লাঙ্গলমার্কা কর্মীর হামলায় অটোরিক্সার কর্মী আহত রাজশাহীর কাটাখালী পৌর ফান্ড থেকে সাড়ে ৩ কোটি টাকা গায়েব ভোটের জোয়ারে আবারও এগিয়ে বাদল চেয়ারম্যান কাঁঠালে কামালের জন্য লাঙ্গলে ভোট জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা ডাঃ কে আর ইসলাম কুসুমপুরা ইউনিয়নকে মডেল ইউনিয়নে রূপান্তর করা হবে- এম এজাজ চৌধুরী
রাজশাহী-১ আসনে ফের আলোচনায় রাব্বানি

রাজশাহী-১ আসনে ফের আলোচনায় রাব্বানি

তানোর (রাজশাহী) প্রতিনিধি
রাজশাহী-১ (তানোর-গোদাগাড়ী) ভিআইপি সংসদীয় আসনে আওয়ামী লীগের দলীয় মনোনয়ন প্রত্যাশী, আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে বর্ণাঢ্য রাজনৈতিক জীবনের অধিকারী, তানোর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি, মুন্ডুমালা পৌর মেয়র, একটানা তিনপ্রজন্মের জনপ্রতিনিধি, শত বছরের রাজনৈতিক ঐতিহ্যবাহী সম্ভ্রান্ত পরিবারের সন্তান, তারকা খ্যাতি সম্পন্ন, কর্মী-জনবান্ধব, আদর্শিক, মিষ্টভাষি তরুণ রাজনৈতিক নেতা গোলাম রাব্বানি প্রার্থী হবেন এটা প্রায় নিশ্চিত বলে রাজনৈতিক অঙ্গনের আলোচনায় উঠে এসেছে। সম্প্রতি রাব্বানির ঢাকা সফর নিয়ে আলোচনায় নতুন মাত্রা যোগ হয়েছে। আওয়ামী লীগের নীতিনির্ধারক মহলের দায়িত্বশীল এক নেতার আহবানে রাব্বানি ঢাকা সফরে গেছেন বলে তার ঘনিষ্ঠ সূত্র নিশ্চিত করেছে। রাজশাহীর রাজনৈতিক অঙ্গনে আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী লীগবিরোধী শিবিরেও একই আলোচনা প্রাধান্য পাচ্ছে রাব্বানীর দলীয় মনোনয়ন পাওয়া না পাওয়ার বিষয়টি। তবে স্থানীয় আওয়ামী লীগের একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, আগামি একাদ্বশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে গোলাম রাব্বানি প্রার্থী হচ্ছেন এটা প্রায় নিশ্চিত। আর তৃণমূলের নেতাকর্মী ও সাধারণ ভোটারদের মাঝে রাব্বানির প্রার্র্থীতার যৌক্তিকতা তুলে ধরতে তারা পাট ও বস্ত্রমন্ত্রী এমাজ উদ্দীন প্রামানিকের নির্বাচিত হবার বিষয়টি সামনে এনে বলেন, তাঁর চেয়েও প্রয়াত মাহাম পরিবারের অনেক বেশি রাজনৈতিক, সামাজিক পরিচিতি ও গ্রহণযোগ্যতা রয়েছে তাহলে রাব্বানি কোনো পারবে না। তারা বলেন, নেতা যদি আদর্শিক কর্মী-জনবান্ধব হয় তাহলে দলীয় প্রতিক প্রয়োজন হয় না যার প্রমান পাট ও বন্ত্রমন্ত্রী এমাজ উদ্দীন প্রামানিক। আবার অনেক এলাকায় এমপিরা জনবিচ্ছিন্ন হলেও তৃণমূলের নেতারা কখানোই এমপিদের বিরুদ্ধে মতামত দিতে পারে না আর এটা দেথে বা বিবেচনায় রিয়ে মনোনয়ন দেয়া হলে তখন দলীয় প্রার্থীর ভরাডুবি ঘটে এমন আলোচনাও রয়েছে তৃণমূলের নেতাকর্মীদের মধ্যে।
স্থানীয় রাজনৈতিক পর্যবেক্ষক মহলের ভাষ্য, যদি জোটগতভাবে নির্বাচন হয় তাহলে এখানে বিএনপিকে ছাড় দিতে নারাজ জামায়াত, সেক্ষেত্রে জামায়াতের কেন্দ্রীয় নেতা ও সাবেক এমপি অধ্যাপক মুজিবুর রহমান প্রার্থী হতে পারে। সেটি হলে বিএনপিতে ব্যারিস্টার আমিনুল অনুগতরা তাদের আধিপত্য বজায় রাখতে প্রকাশ্য না হলেও গোপণে জামায়াত প্রার্থীর বিপক্ষে অবস্থান নিতে পারে, আবার ব্যারিস্টার আমিনুল হককে প্রার্থী করা হলে বিএনপির একটি বড় অংশের নেতাকর্মীরা এখানো ব্যারিস্টার বিরোধী অবস্থানে রয়েছে এবং জামায়াতও রাজনীতিতে তাদের অস্থিত্ব বা অবস্থান ধরে রাখতে প্রকাশ্যে না হলেও গোপণে ব্যারিস্টারের বিপক্ষে অবস্থান নিতে পারে এছাড়াও নানা কারণে ব্যারিস্টার আমিনুল হক শেষ পর্যন্ত ভোটের মাঠে থাকতে নাও পারে, এসব বিবেচনায় এই বিপুল অঙ্কের ভোট পড়তে পারে স্বতন্ত্র প্রার্থীর বাক্সে বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

অপরদিকে আওয়ামী লীগের একাংশের নেতাকর্মীদের দাবি গোলাম রাব্বানি স্বতন্ত্র প্রার্থী হলেও তার বিজয়ের উজ্জ্বল সম্ভবনা রয়েছে। তাদের বিশ্লেষণ, আওয়ামী লীগের একাংশের ভোট রাব্বানি তো পাবেনই পাশপাশি বিএনপির একটি বৃহত অংশের ভোট তার বাক্সে যাবে, এছাড়াও তার পিতা প্রয়াত বীর মুক্তিযোদ্ধা মোহাম্মদ আলী মাহামের জনপ্রিয়তার কারণে তার পুত্র রাব্বানি এই অঞ্চলের দলমত নির্বিশেষে সাধারণ মানুষের একটি বড় অংশের ভোট পাবে বলে তৃণমূলের অভিমত। এসব বিবেচনায় রাব্বানি স্বতন্ত্র প্রার্থী হলেও তার বিজয় কেউ ঠেকাতে পারবে না এমন আলোচনা রয়েছে সাধারণ মানুষের মধ্যে। অপরদিকে সাধারণ মানুষের অভিমত, দুটি কারণে রাব্বানী অন্যদের খেকে মনোনয়ন দৌড়ে এগিয়ে রয়েছেন একটি আওয়ামী লীগের ভোট তো তিনি পাবেনই, অপরটি তার পরিবারের শত বছরের রাচনৈতিক ঐতিহ্য ও বিশাল সামাজিক পরিচিতির কারণে আওয়ামী লীগবিরোধী শিবিরের একটি বড় অংশের ভোটও পাবেন তিনি। আওয়ামী লীগের ভোট ব্যাংক ও প্রয়াত মাহাম পরিবারের বিশাল জনসমর্থন কাজে লাগাতে পারলে রাব্বানির বিজয়ী হওয়া সময়ের ব্যাপার মাত্র। কারণ হিসেবে তারা বলছে, রাব্বানির আহবানে চলতি বছরের ১০ জানুয়ারী বঙ্গবন্ধুর স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবসে প্রায় কুড়ি হাজার মানুষের সমাগম ও ১৩ রমজান তার পারিবারিক ইফতার মাহফিলে প্রায় কুড়ি হাজার মানুষের সমাগমই প্রমাণ হয়েছে এই অঞ্চলে রাব্বানি পরিবার এখানো জনপ্রিয়তার শীর্ষে রয়েছে। প্রয়াত মাহাম পরিবার থেকে পঞ্চায়েত প্রধান, রিলিফ কমিটির চেয়ারম্যান, ইউপি চেয়ারম্যান, পৌর মেয়র, কাউন্সিলর, ইউপি সদস্য ও গ্রাম প্রধান ইত্যাদি নির্বাচিত হয়ে রাজনৈতিক অঙ্গনে এখানো সরব রয়েছে কেবলমাত্র সংসদ সদস্য (এমপি) নির্বাচিত হওয়া বাঁকি তাই এই জনপদের মানুষের একটাই দাবি একটি বারের জন্য হলেও তারা মাহাম পরিবার থেকে এমপি দেখতে চান। এমপি নির্বাচন করার মতো রাজনৈতিক ও সামাজিক পরিচিতি, জনপ্রিয়তা ও জনসমর্থন, কর্মী বাহিনীসহ সব যোগ্যতা থাকার পরেও মনোনয়ন প্রাপ্তির অশুভ প্রতিযোগীতায় টিকতে না পেরে তাকে বার বার ফিরে আসতে হয়েছে। ইতমধ্যে একবার রাব্বানি এমপি নির্বাচনে মনোনয়নপত্র উত্তোলন করে বিজয়ী হওয়ার সম্ভবনা থাকার পরেও কেবলমাত্র দল ও নেতৃত্বের প্রতি আনুগত্য প্রকাশ করে মনোনঢনপত্র প্রত্যাহার করে নিয়ে ছিলেন। এমনকি রাব্বানির হাত ধরে অনেকে আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে এসে মন্ত্রী-এমপি হয়েছেন তবে রাব্বানি এখানো আদর্শিক নেতা হিসেবে তৃণমূলে রয়েছে বলে একাধিক সূত্র নিশ্চিত করেছে।

Please Share This Post in Your Social Media



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD