বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:৫৬ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
পাইকগাছায় এমপি’র সহায়তায় প্রধানমন্ত্রীর অর্থ চেক পেলেন ২৯ অসহায় নারী-পুরুষ নড়াইলে স্বাধীনতার সুবর্ন জয়ন্তী উপলক্ষে সু বিশাল র‌্যালী নওগাঁর আত্রাইয়ে অভ্যন্তরীণ আমন ধান ও চাল সংগ্রহ এর শুভ উদ্বোধন মহেশপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় মুক্তিযোদ্ধা নিহত পুলিশ স্বামীর পরকীয়ায় সংসার খরচবন্ধ অসহায় স্ত্রী সন্তানের মানবেতর জীবন কুড়িগ্রামে আনসার ও ভিডিপি কর্তৃক জাতীয় পতাকা প্রদক্ষিণ র‌্যালী উদযাপন নড়াইলে পরাজিত মেম্বার প্রার্থীকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে আহত আজ ঐতিহাসিক শান্তি চুক্তি দিবস ভোক্তা অধিকার আইন বিষয়ে সরকারি প্রতিষ্ঠানসমূহের পাশাপাশি জনগণকেও সচেতন হতে হবে- ইউএনও মিজাবে রহমত। ভালুকার মেদুয়ারী ইউনিয়নে নৌকার মাঝি হতে চান যুবলীগ নেতা অধ্যাপক রবিন।।
“যারা বঙ্গবন্ধুকে তাঁর সোনার বাংলায় নিষিদ্ধ করেছিল তারা আজ চরমভাবে পরাজিত-আবু রেজা নদভী এমপি।

“যারা বঙ্গবন্ধুকে তাঁর সোনার বাংলায় নিষিদ্ধ করেছিল তারা আজ চরমভাবে পরাজিত-আবু রেজা নদভী এমপি।

এম মহিউদ্দীন চৌধুরী,দক্ষিণ চট্টগ্রাম প্রতিনিধি।
চট্টগ্রাম-১৫ (সাতকানিয়া-লোহাগাড়া) আসনের সাংসদ প্রফেসর ড. আবু রেজা মুহাম্মদ নেজামুদ্দীন নদভী এমপি বলেন, ১৯৭৫’র ১৫ আগস্টের কালো রাত্রিতে ঘাতকদের পৈশাচিকতা সমগ্র বিশ্বের রাজনৈতিক হত্যাকান্ড সমূহকেও হার মানিয়েছে। বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যার মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও ইতিহাস বিকৃত করে স্বাধীনতা বিরোধিরা নতুন করে ইতিহাস রচনা করেছিল। কিন্তু ইতিহাস তার আপন গতিতেই চলে। ড. আবু রেজা নদভী এমপি আরো বলেন, যারা শতাব্দীর শ্রেষ্ঠ বাঙালী বঙ্গবন্ধুকে তাঁর সোনার বাংলায় নিষিদ্ধ করেছিল, সেই ইতিহাস বিকৃতিকারীরা আজ চরমভাবে পরাজিত হয়েছে। বাঙালীর হৃদয়ে-জাগরণে দেদীপ্যমান বঙ্গবন্ধুর অস্তিত্ব।

তিনি আজ ১৭ আগস্ট ২০১৭ইং শুক্রবার বিকাল ৩টায় সাতকানিয়া উপজেলার দেওদীঘি কে.এম উচ্চ বিদ্যালয় মাঠ প্রাঙ্গণে বঙ্গবন্ধুর ৪৩তম শাহাদাৎবার্ষিকী উপলক্ষে সাতকানিয়া উপজেলা শোক দিবস উদযাপন পরিষদ আয়োজিত শোক সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।
শোক সভায় মূখ্য আলোচকের বক্তব্যে চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি আবু সুফিয়ান বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট কালরাতে স্বাধীনতার মহান স্থপতি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে ঘাতকরা শুধু সপরিবারে তাঁকে হত্যা করেনি, সেদিন হত্যা করা হয়েছিলো একটি জাতির আত্মপরিচয়কে, আমাদের অবিনাশী চেতনাকে। বঙ্গবন্ধুর জীবনটাই ছিলো মানুষের জন্য উৎসর্গিত। বঙ্গবন্ধু হত্যার পর যারা বিভিন্ন ধরনের আস্ফালন করেছেন, ইতিহাস তাদের ক্ষমা করেনি। তিনি আরো বলেন বঙ্গবন্ধু, বাঙালি ও বাংলাদেশ এক, অভিন্ন। তিনি মিশে আছেন, মিশে থাকবেন জাতির অগ্রযাত্রার প্রতিটি অনুভবে সাহস, শক্তি ও অনুপ্রেরণা হয়ে।
প্রধান বক্তার বক্তব্যে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সভাপতি মাঈনুদ্দিন হাসান চৌধুরী বলেন, বাঙালি জাতির সব মুক্তি সংগ্রামের অগ্রনায়ক ছিলেন বঙ্গবন্ধু। তিনি আপাদমস্তক একজন আপোষহীন জাতীয়তাবাদী নেতা ছিলেন। প্রকৃতপক্ষে তাঁর বলিষ্ঠ নেতৃত্ব ও দৃঢ় ব্যক্তিত্বকে ঘিরেই বাঙালি জাতি গত শতাব্দীর মধ্য-ষাট দশক হতে শোষণ-বঞ্চনা থেকে মুক্তিলাভের স্বপ্নে বিভোর হয়। তিনি তাঁর জাতিসত্তা বাঙালিত্বের চেতনায় এই জনপদের মানুষকে জাগ্রত করেছিলেন। বঙ্গবন্ধু আমৃত্যু একটি অসাম্প্রদায়িক, গণতান্ত্রিক, উন্নত, সমৃদ্ধ বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশের যথাযথ রূপায়ণে কাজ করাই হবে আজ তাঁর প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের সর্বোত্তম উপায়।
সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সহ-সভাপতি মাস্টার ফরিদুল আলমের সভাপতিত্বে, উপজেলা আওয়ামীলীগের প্রচার, প্রকাশনা সম্পাদক ও উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক সাইদুর রহমান দুলাল এবং উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য এরফানুল করিম চৌধুরী’র যৌথ সঞ্চালনায় শোক সভায় অন্যান্যের মাঝে বক্তব্য রাখেন সাতকানিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: মোবারক হোসেন, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামীলীগের প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক নুরুল আবছার চৌধুরী, আওয়ামীলীগের উপদেষ্টা মাস্টার আবুল কাশেম চৌধুরী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সহ সভাপতি মোজাম্মেল হক, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান আব্দুল মোনাফ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আবু তাহের এলএমজি, উপজেলা আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও শোক সভা উদযাপন পরিষদের সদস্য সচিব ফয়েজ আহমদ লিটন, সাংগঠনিক সম্পাদক ও চট্টগ্রাম জেলা পরিষদের সদস্য জসিম উদ্দিন, মহিলা সদস্যা শাহিদা আক্তার জাহান, সাতকানিয়া উপজেলা আওয়ামীলীগের ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক মাহমুদুর রহমান, চরতী ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোস্তাকিম চৌধুরী, কাঞ্চনা ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য মোখলেছ উদ্দিন জাকের, উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য খানে আলম মিন্টু, মোহাম্মদ জুবায়ের, আসাদুজ্জামান জনি, মাদার্শা ইউয়িন আওয়ামীলীগের সভাপতি নুরুল ইসলাম নুরু, মাদার্শা ইউপি চেয়ারম্যান আ.ন.ম সেলিম চৌধুরী, সাতকানিয়া ইউপি চেয়ারম্যান নেজামুদ্দিন, এওচিয়া ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম মানিক, পশ্চিম ঢেমশা ইউপি চেয়ারম্যান আবু তাহের জিন্নাহ, সাবেক চেয়ারম্যান লায়ন ওসমান গণি চৌধুরী, লোহাগাড়া উপজেলা আওয়ামীলীগের সদস্য এইচএম. গণি সম্রাট, মিয়া মো: শাহজাহান, পৌর আওয়ামী লীগ নেতা গোলাম ফেরদৌস রুবেল,মাননীয় সাংসদের এ্যম্বাসেডর জাহাঙ্গীর আলম,উপজেলা যুবলীগের যুগ্ম আহবায়ক হারেজ মুহাম্মদ, উপজেলা কৃষকলীগের সভাপতি লুৎফুর রহমান, তাঁতি লীগের সভাপতি সোহরাব হোসেন মিন্টু, স্থানীয় সাংসদের সহকারী একান্ত সচিব শাহাদাৎ হোছাইন শাহেদ, যুবলীগ নেতা , মোহাম্মদ আলী, দিদারুল আলম শিপন, দেলোয়ার হোসেন বেলাল, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক জয়নাল আবেদীন, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি আবদুল মান্নান প্রমুখ

Please Share This Post in Your Social Media



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD