বৃহস্পতিবার, ২০ জানুয়ারী ২০২২, ০৮:১৮ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
সারাদেশে ভয়ংকর মাদক অবাধে বিক্রি ও সেবন করায় নষ্ট হচ্ছে যুবসমাজ চাঁপাইনবাবগঞ্জে সোনালী ব্যাংক লি. গোমস্তাপুর শাখায় শীতবস্ত্র বিতরণ নওগাঁ’র পত্নীতলা উপজেলা সদদরে স্থাপিত মেডিক্যাল এ্যাসিস্ট্যান্ট ট্রেনিং স্কুল“ম্যাটস” এ চলতি বছর শিক্ষাক্রম চালু হচ্ছে নড়াইলে ছেলে ও বউমার অত্যাচারে গোয়াল ঘরে থাকা ৯২ বছর বয়সী শাহাজাদী নিজগৃহে শাজাহানপুরে শত্রুতার আগুনে পুড়লো কৃষকের খড়ের পালা ধামইরহাটে ইউপি নির্বাচনে ভোট কারচুপির তদন্ত শুরু নড়াইলে ডাক্তারের ভুল অপারেশনে ববিতার মৃত্যুর অভিযোগ। মা হারা হলো চার সন্তান নড়াইলে খেজুর গাছ ও রস ধীরে ধীরে হারিয়ে যাচ্ছে মহালছড়িতে প্রতিবন্ধী পরিবারের পাশে অর্থ সহায়তায় সেনাবাহিনী মোংলায় সাড়ে ৪ শতাধিক অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ
লক্ষনশ্রী ইউনিয়নে জন্মসনদ জালিয়াতি করে এক অপ্রাপ্তবয়স্ক কিশোরীকে বিয়ে দেয়ার পায়ঁতারা

লক্ষনশ্রী ইউনিয়নে জন্মসনদ জালিয়াতি করে এক অপ্রাপ্তবয়স্ক কিশোরীকে বিয়ে দেয়ার পায়ঁতারা

কেএম শহীদুল,সুনামগঞ্জ
সুনামগঞ্জ সদর উপজেলার লক্ষনশ্রী ইউনিয়নে জন্মসনদ জাল করে বয়স বাড়িয়ে বাল্য বিবাহ দেওয়ার পায়ঁতারা চলছে বলে খবর পাওয়া গেছে। স’ানীয় সুত্রে যানা যায় লৰনশ্রী ইউনিয়নের বাহাদুরপুর গ্রামের বাসিন্দা মো: সফর আলী ও মোছা: আমির্বন নেছার মেয়ে মোছাম্মদ নাবিলা আক্তার রিংকুর বয়স ১৬ বছর ৪ মাস ৭দিন।
খোজঁ নিয়ে জানা যায়, ২০০২ সালের ১ জুলাই তারিখে লৰনশ্রী ইউনিয়ন পরিষদ হইতে মেয়েটির জন্ম সনদ তোলা হয় এবং তাহার এসএসসি পরীৰার সার্টিফিকেটে উলেৱখ্য আছে মেয়েটির জন্ম ২০০২ সালের ৮ মার্চ। কিন্তু সেই জন্মসনদ নকল করে তাহার জন্ম তারিখ বানানো হয়েছে ১৯৯৯ সালের ৮ই মার্চ । এই নকল জন্ম নিবন্ধন দিয়ে আগামী ১৮জুলাই নাবিলা নামের ঐ অপ্রাপ্ত কিশোরীকে পার্শ্ববর্তী দক্ষিণ সুনামগঞ্জ উপজেলার পাথারিয়া ইউনিয়নের কান্দিগাঁও গ্রামের মৃত আব্দুল হামিদের ছেলে দুবাই প্রবাসী মোঃ সামছুল আলমের সাথে বিবাহ দেয়ার পায়তাঁরা চালাচ্ছেন কিশোরীটির পরিবারের লোকজন । সরকার আইন প্রণয়ন করে বাল্য বিবাহ নিষিদ্ধ করলেও কিছু অসাধু ব্যাক্তিদের কারনে বাল্যবিবাহের প্রবণতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে । বর্তমান সমাজ ব্যবস্থায় কিছু কিছু পরিবারে জনসচেতনতার অভাবে কিংবা যৌতুকের লোভে অপ্রাপ্ত বয়স্ক কিশোরীদের বাল্যবিবাহে বাধ্য করে সাংসারিক জীবনে প্রবেশের সুযোগ দিয়ে জীবন নষ্ট করে দেয়া হচ্ছে। ফলে বিয়ের পর বছর ঘুরতে না ঘুরতেই ঐ সমস্ত অপ্রাপ্ত বিবাহিত কিশোরীরা নানান জটিল রোগে আক্রান্ত হয়ে অকালে মৃত্যুমুখে পতিত হচ্ছে। এ বিষয়ে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন বিভিন্ন সময় জনসচেতনতা মূলক সভা সেমিনার করলেও তা কেবলই কাগজে কলমে সীমাবদ্ধ থাকে এবং কিছু কিছু পরিবারের যৌতুকলোভী অভিভাবকরা নিজ ইউনিয়ন পরিষদের কিছু র্দূনীতিবাজ ইউপি সদস্যদের টাকার মাধ্যমে ম্যানেজ করেই জন্মসনদ দিয়ে মূলত এই ধরনের বাল্যবিবাহ প্রতিনিয়ত সংঘটিত হতে চলেছে । প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা যেন অনেকইে দেখে ও না দেখার ভান করছেন। এমন ও নজির রয়েছে এই জেলায় কোথা ও না কোথাও বাল্যবিবাহ সম্পন্ন হওয়ার আগ মূহুর্তে গণমাধ্যমকর্মীরা খবর পেয়েই স্থানীয় জেলা কিংবা উপজেলা প্রশাসন ও থানা পুলিশকে অবহিত করার সাথে সাথেই প্রশাসনের কর্তাব্যক্তিরা পুলিশ ফোর্স সঙ্গে নিয়ে ঘটনাস’লে গিয়ে বাল্যবিবাহ বন্ধ করে দোষীদের বির্বদ্ধে সাজাঁ প্রদানের নজীর সৃষ্টি করেছেন। তারপরেও কেন এই বাল্যবিবাহের প্রবণতা কিংবা কুফল সর্ম্পকে সাধারন মানুষজন এখনো সচেতন হতে পারছেন না এমন শংঙ্কাই প্রকাশ করলেন সমাজের বিজ্ঞজনেরা ।
এ ব্যাপারে লক্ষনশ্রী ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ আব্দুল ওয়াদুদের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান আমি বিষয়টি খোজ নিয়ে দেখব এবং যারা এই বাল্যবিবাহের সাথে সংশিৱষ্ট তাদের বির্বদ্ধে প্রমাসনের সহযোগিতা নিয়ে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন।
এ ব্যাপারে কিশোরীর বড়ভাই নুর্বল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তার বোনের বয়স ১৬ বছর স্বীকার করে জানান,আগামী ১৮ই জুলাই যে ছেলেটির সাথে বিয়ের প্রস্তাব স্বাব্যস্থ করা হয়েছে সে দুবাই প্রবাসী । আমরা খোলা কাগজে বিয়ে কাবিননামা করে বিয়ের অনুষ্ঠান সম্পন্ন করতে চাই। ছেলেটি বিয়ে সম্পন্ন হওয়ার ১৫ দিন পরে বিদেশে চলে যাবে তাই বিয়ে দিতে চাই।
এ ব্যাপারে সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ শহীদুলৱাহ জানান আইন অমান্য করে কেহ বাল্যবিবাহ দেয়ার চেষ্টা করে তাহলে তাদের বির্বদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।
এ ব্যাপারে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার প্রদীপ সিংহ জানান, এইমাত্র আপনার মাধ্যমে বিষয়টি জানতে পারলাম তাই এখনই বাল্যবিবাহ বন্ধে সরেজমিনে ঘটনাস্থলে গিয়ে আইনগতভাবে যা যা করা দরকার তাই করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD