শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০:৫৩ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
তানোরে সুজনের ক্রীড়া সামগ্রী বিতরণ মুন্সীগঞ্জ‌ে টঙ্গীবাড়ী‌র ধীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক গভীর এবং কালের বিবর্তনে উত্তীর্ণঃ নৌ প্রতিমন্ত্রী কাহালু এক নারীর বেপরয়া জীবন যাপনে অতিষ্ট গ্রামবাসী কুমিল্লার দাউদকান্দিতে অটোরিকশা চালকের মরদেহ উদ্ধার পঞ্চগড়ে ইজিবাইকের ধাক্কায় শিশুর মৃত্যু কেশবপুরে কুকুরের কামড়ে ১৩শিশুসহ ২৫ জন আহত প্রতিদিন আক্রান্তের সংখ্য বাড়ছে গজারিয়া চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আলম সাহেবের শশুরের কুলখানি। নড়াইল পৌরবাসী সামান্য বৃষ্টিতে নাকাল জল জন্তনায় ধামইরহাটে ২টি ভাঙ্গা কালভার্ট দ্রুত মেরামত করা জরুরি
নবনির্বাচিত হয়েই চমক, ৬৬১ কোটি টাকার প্রকল্প পাচ্ছেন গাজীপুর সিটি মেয়র!

নবনির্বাচিত হয়েই চমক, ৬৬১ কোটি টাকার প্রকল্প পাচ্ছেন গাজীপুর সিটি মেয়র!

নিজস্ব প্রতিবেদক:
নবনির্বাচিত গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের (জিসিসি) নবনির্বাচিত মেয়র অ্যাডভোকেট মো. জাহাঙ্গীর আলম পাচ্ছেন ৬৬১ কোটি টাকার উন্নয়ন প্রকল্প।

বিশেষ করে নির্বাচনের আগে অনুন্নত এ সিটিকে আধুনিক সিটিতে রূপান্তরের প্রত্যাশার কথা জানিয়েছিলেন তিনি জাহাঙ্গীর আলম। তার কথা যেন বাস্তবে রূপ দিতেই স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয় থেকে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের ভৌত অবকাঠামো উন্নয়ন (রাস্তা ও ড্রেন) প্রকল্প প্রস্তাব করা হয়েছে পরিকল্পনা কমিশনে।

আজ মঙ্গলবার জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটির (একনেক) সভায় প্রকল্পটি অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হবে। অনুমোদনের পর জানুয়ারি ২০১৮ হতে জুন ২০২০ সালে এটি বাস্তবায়ন করবে গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন। প্রকল্পটির মূল ব্যয় থেকে সরকারি তহবিল থেকে দেয়া হবে ৫২৯ কোটি টাকা এবং বাকি ১৩২ কোটি টাকা জিসিসির তহবিল থেকে খরচ করা হবে। পরিকল্পনা কমিশন সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।

সূত্র জানিয়েছে, ২০১৩ সালে গাজীপুর ও টঙ্গী পৌরসভা এবং ৬টি ইউনিয়ন নিয়ে নতুন এ সিটি কর্পোরেশনটি নির্মাণ করা হয়। এ সিটির ওয়ার্ড সংখ্যা ৫৭টি যা ৫টি জোনে বিভক্ত। বর্তমানে এ সিটির আয়তন ৩৩০ বর্গ কিলোমিটার। যার মধ্যে পূর্বের গাজীপুর ও টঙ্গী পৌরসভা এলাকা ২৪৫ বর্গ কিলোমিটার এবং বাকি নতুন ৬টি ইউনিয়নের আয়তন ৮৫ বর্গ কিলোমিটার। এ সিটিতে যুক্ত হওয়া নবযুক্ত এলাকাগুলো খুবই অনুন্নত।

নতুনভাবে সংযুক্ত এলাকার বেশিরভাগ রাস্তা কাঁচা। বর্তমানে এ সিটির বেশিরভাগ সড়কগুলো প্রশস্ত কম হওয়ায় যানজট লেগেই থাকে। তাছাড়া বর্ষাকালে বিদ্যমান রাস্তাগুলো দিয়ে যানবাহন চলাচলে বিভিন্ন সমস্যার মধ্যে পড়তে হয়। ঢাকার পার্শ্ববর্তী এ সিটির ড্রেনেজ ব্যবস্থাও অত্যান্ত খারাপ হওয়ায় প্রতিনিয়তই জলাবদ্ধতার সৃষ্টি হচ্ছে। এজন্য বিদ্যমান রাস্তা ও ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়নে প্রকল্পটি গ্রহণ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে পরিকল্পনা কমিশনের ভৌত অবকাঠামো বিভাগের সদস্য বলেন, প্রস্তাবিত প্রকল্পটি অনুমোদিত হলে নবগঠিত গাজীপুর সিটি কর্পোরেশনের অন্তর্ভুক্ত এলাকার নতুন সড়ক নির্মাণ ও বিদ্যমান সড়ক প্রশস্তকরণ এবং ড্রেন নির্মাণ করা হবে। প্রকল্পটি বাস্তবায়নের পর বাণিজ্যিক এ এলাকার যানজট হ্রাসের মাধ্যমে জনসাধারণের চলাচল, পণ্য পরিবহন সহজতর হবে। মূলত দেশের অন্য সিটিগুলো থেকে ঢাকার পার্শ্ববর্তী গাজীপুর সিটি অনেকটাই পিছিয়ে আছে। সেজন্যই এ প্রকল্পটি একনেকে অনুমোদনের জন্য উপস্থাপন করা হবে।

নতুনবাজার/হেলাল শেখ

Please Share This Post in Your Social Media



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD