শনিবার, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ০৮:২৫ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
ঝিনাইদহ জেলা আইনজীবী সমিতির নির্বাচনে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ঐক্য ফোরামের বিজয় ঝিনাইদহে স্বামীর লাঠির আঘাতে স্ত্রী নিহত নড়াইলের লোহাগড়া ১২টি ইউপিতে চেয়ারম্যান পদে আ’লীগের ৪৩ বিদ্রোহীসহ ৬৭ জন প্রার্থী মহেশপুরে পরকীয়ার জের ধরে এক গৃহবধুকে পিটিয়ে হত্যা বীর মুক্তিযোদ্ধা উপজেলা সাবেক চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর হোসেন সেরনিয়াবাতের রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন সুনামগঞ্জ সদরের নিয়ামতপুরে লাঙ্গলমার্কা কর্মীর হামলায় অটোরিক্সার কর্মী আহত রাজশাহীর কাটাখালী পৌর ফান্ড থেকে সাড়ে ৩ কোটি টাকা গায়েব ভোটের জোয়ারে আবারও এগিয়ে বাদল চেয়ারম্যান কাঁঠালে কামালের জন্য লাঙ্গলে ভোট জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যানের উপদেষ্টা ডাঃ কে আর ইসলাম কুসুমপুরা ইউনিয়নকে মডেল ইউনিয়নে রূপান্তর করা হবে- এম এজাজ চৌধুরী
জামালপুরে এক শিক্ষক দিয়েও চলছে ২০০ শিক্ষার্থীর পাঠদান

জামালপুরে এক শিক্ষক দিয়েও চলছে ২০০ শিক্ষার্থীর পাঠদান

সৈকত আহমেদ বেলাল, জামালপুর প্রতিনিধি : জামালপুরে একজন শিক্ষক দিয়ে চলছে পূর্ব হরিণধরা সরকারি প্রাইমারী স্কুল। এতে ওই স্কুলের ২০০ শিক্ষার্থীসহ চরাঞ্চলের শিশুরা প্রাথমিক শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।
সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, জামালপুর জেলার ৭ উপজেলার প্রায় ৯শ ৭৮ টি সরকারি-বেসরকারী ও প্রস্তাবিত প্রাইমারী স্কুলের প্রায় ২ শতাধিক শিক্ষকের পদ শূন্য রয়েছে। এর মধ্যে শুধু ইসলামপুর উপজেলায় ৭৪ জন প্রধান শিক্ষক ও ৪৯ জন সহকারী শিক্ষকসহ ১শ ২৩ জন শিক্ষকের পদ শূন্য রয়েছে। এতে বন্যা ও নদীভাঙন কবলিত চরাঞ্চলের শিশুরা প্রাথমিক শিক্ষা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।
স্থানীয় সূত্র জানায়, উপজেলার ব্রহ্মপুত্র নদের দূর্গম চরাঞ্চল পূর্ব হরিণধরা প্রাইমারী স্কুলের ৫জন শিক্ষকের পদ দীর্ঘ দিন ধরে শূন্য থাকায় প্রাক-প্রাথমিকের জন্য নিয়োগপ্রাপ্ত মাত্র একজন শিক্ষক দিয়ে চলছে ২ শতাধিক শিক্ষার্থীর লেখাপড়া। উপজেলা সদর থেকে স্কুলটির দূরত্ব প্রায় ২০ কিলোমিটার। ব্রহ্মপুত্র-দশআনী নদী গ্রামটিকে চার পাশে ঘিরে রেখেছে। সড়ক যোগাযোগের তেমন কোনো ব্যবস্থা নেই। পায়ে হাঁটাই এ গ্রামের মানুষের একমাত্র ভরসা। অবহেলিত পূর্ব হরিণধরা গ্রামের শিশুদের প্রাথমিক শিক্ষা নিশ্চিত করার জন্য ১৯৭০ সালে পূর্ব হরিণধরা স্কুলটি প্রতিষ্ঠা করা হয়। কিন্তু শিক্ষকের অভাবে শিক্ষার সুফল পাচ্ছে না এ গ্রামের কোমলমতি শিশুরা।
স্কুল সূত্র জানায়, স্কুলটিতে ২শ ৭২ জন ছাত্রছাত্রী ছিল। তাদের পাঠদানের জন্য একজন প্রধান শিক্ষক ও ৫জন সহকারী শিক্ষকের পদ রয়েছে। এর মধ্যে প্রধান শিক্ষক ফেরদৌসী ইয়াসমিন পিটিআই প্রশিক্ষণে থাকায় ৪টি পদ দীর্ঘদিন ধরে শূন্য রয়েছে। শিক্ষক সংকটের কারণে ইতোমধ্যে শতাধিক শিক্ষার্থী অন্য প্রতিষ্ঠানে চলে গেছে।
ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মারফত আলী বলেন, শিক্ষকের জন্য আমি অনেক বার উপজেলা শিক্ষা অফিসারের নিকট গিয়েছি। তিনি শুধু কথাই দিয়েছেন। পূর্ব হরিণধরা স্কুল আজও পর্যন্ত কোনো শিক্ষক পায়নি।
উপজেলা শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ কামরুজ্জামান বলেন, কোন শিক্ষক ওই স্কুলে যেতে আবেদন না করলে আমার পাঠানোর ক্ষমতা নেই। তবে দ্রুত সময়ের মধ্যে ডেপুটেশনে একজন শিক্ষক পাঠানোর চেষ্টা করছি।
অপরদিকে উপজেলার ১শ ৪৩টি প্রাইমারী স্কুলের ৭৪টির প্রধান শিক্ষকের পদ শূন্য থাকায় স্কুলগুলো চলছে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক দিয়ে। ফলে স্কুলের প্রশাসনিক অবস্থা দূর্বল হয়ে শিক্ষার পরিবেশ বিনষ্ট হচ্ছে।
এ ব্যাপারে সহকারী জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মোহাম্মদ শহিদুজ্জামান বলেন, প্রাইমারী শিক্ষক নিয়োগ প্রক্রিয়া চলমান আছে। নিয়োগ হলেই ওই প্রতিষ্ঠানসহ শূণ্যপদে শিক্ষক পোষ্টিং দেয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD