মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৩:২৬ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
তিতাস গ্যাসের অবৈধ সংযোগ দিয়ে জমজমাট বাণিজ্য-প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা সুজানগরে খালেদা জিয়া সহ কেন্দ্রীয় অন্যান্য নেতাদের রোগ মুক্তি কামনা করে দোয়া পাইকগাছায় পরিকল্পিত উপায় বাগদা চিংড়ি ও ধান চাষের লক্ষে মত বিনিময় সভা। পাইকগাছায় নিরাপদ সড়ক চাই সংগঠনের পক্ষ থেকে পঙ্গু আঃ খালেককে সিঙ্গার সেলাই মেশিন বিতরণ পাইকগাছার কপিলমুনিতে দু’টি গ্রুপের পৃথক ভাবে রায় সাহেবের ৮৮তম তিরোধান দিবস পালিত সুজানগরে উপহারের ঘর পরিদর্শন করলেন পুলিশ সুপার সুজানগরে প্রতিবন্ধী শিক্ষার্থীদের মাঝে পুলিশ সুপারের শীতবস্ত্র বিতরণ তানোরে রাজশাহী জেলা সমিতির শীতবস্ত্র বিতরণ সেলাই দক্ষতা প্রশিক্ষণ ও সেলাই মেশিন বিতরণ কার্যক্রম সভাপতি মানিক এবং সম্পাদক শাহজাহান বানারীপাড়ায় নতুনমুখের সম্মেলন অনুষ্ঠিত
সারা দেশের সাংবাদিকরা অবহেলিত সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার জন্য আহব্বান

সারা দেশের সাংবাদিকরা অবহেলিত সবাইকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করার জন্য আহব্বান

হেলাল শেখঃ
সারা দেশের সকল সাংবাদিক অবহেলিত ও নিরাপত্তাহীনতায় থেকেও জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন।

বিশেষ করে সাংবাদিকতার আদর্শলিপি ও পাশ্চত্যের মানসিক দাসত্ব দূরীকরণে গণমাধ্যমের করণীয় এবং তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইন ম্যানুয়েল বই পড়া দরকার সাংবাদিকদের।

বাংলাদেশের সাংবাদিকদেরকে ঐক্যবদ্ধভাবে সাংবাদিকতা করাটা জরুরী হয়ে পড়েছে। সেই সঙ্গে নবাগত বা নতুন সাংবাদিকদের প্রশিক্ষণ দরকার বলে মনে করছেন সচেতন মহল।
মহৎ পেশা সাংবাদিকতা। “সাংবাদিক মানে জাতির বিবেক, সাংবাদিক মানে দেশ প্রেমিক, সাংবাদিক মানে কলম সৈনিক, সাংবাদিক মানে জাতির দর্পন, সাংবাদিক মানে শিক্ষিত জাতি, সাংবাদিক মানে স্বাধীন, সাংবাদিক মানে সম্মানিত জাতি, সাংবাদিক মানে যে কোনো বিষয়ে তদন্ত করা, সাংবাদিক মানে আইন বিষয়ে জানা।

উক্ত ১০টি বিষয় উল্লেখ করা হলো। সাংবাদিক শব্দ ছোট বা সহজ হলেও সাংবাদিকতা পেশা সহজ নয়, আইন বিষয়ে একটি ধারণাঃ সাংবাদিকগণ কখনো আদালতকে অপমান করবেন না। আদালত অপমাননা একটি শাস্তিযোগ্য অপরাধ, এ অপমাননা মানহানিও হতে পারে। তা সত্ত্বেও অপমাননার অপরাধ মানহানির চেয়েও ভিন্ন প্রকৃতির। আদালত অপমাননার শাস্তি কারাদন্ড, যার মেয়াদ ছয় মাস পর্যন্ত হতে পারে অথবা জরিমানা সর্বোচ্চ দুই হাজার টাকা অথবা উভয় দন্ডে দন্ডিত হতে পারে। অবশ্য ক্ষমা প্রার্থনা করলে অপমাননার আসামীকে মুক্তি দেয়া যায়। এ রকম আইন বিষয়ে জানাটাও সাংবাদিকদের জন্য খুবই প্রয়োজন।

বিশেষ করে বাংলাদেশের সাংবাদিকরাই নিরাপত্তাহীনতায় জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন, একমাত্র দেশ ও জাতির কল্যাণে কাজ করে সাংবাদিকরাই অনেকের কাছে অপমানিত হচ্ছেন বলে অনেকেরই অভিমত। এমন কি বিভিন্ন হামলা, মামলার শিকার হচ্ছেন সাংবাদিকরা।

বাংলাদেশেই শুধুমাত্র সাংবাদিকরাই বেশি অবহেলিত, এর কারণ হলো সাংবাদিকরা অনেকেই নিজেদের সঙ্গে নিজেরাই বিবাদ করেন। বিভিন্ন এলাকায় সাংবাদিকদের ক্লাব বা সংগঠনের নামে সিন্ডিকেট তৈরি করে বেশিরভাগ সাংবাদিককে বাহিরে রেখেই তারা কাজ করছেন। কেউ কারো সম্মান করেন না, অনেকেই নিজেকে অনেক বড় বুদ্ধিমান বা বড় সাংবাদিক মনে করেন, নিজেকে নিয়ে অহংকার করে থাকেন, এটা ঠিক?

বিশেষ করে একজন সাংবাদিক যদি বিপদে পড়ে অন্য সাংবাদিকরা সেই সাংবাদিককে আরও বড় বিপদের দিকে ঠেলে দেয় বলে অনেকেরই অভিমত। এটা কি সাংবাদিকের কাজ? সাংবাদিক হলে নিয়মনীতি মানতে হয়, নীতিমালা না মানলে সেই সাংবাদিকতা করার মানে হয় না। দেখবেন, আপনার এলাকায় সমস্যাভিত্তিক সংবাদ প্রকাশ করবেন, দেখবেন একদিন আপনার সমস্যা দুর করবে আল্লাহু। আর অপরাধমূলক কর্মকান্ড হলে-যেমনঃ চুরি, ডাকাতি, ছিনতাই, অপহরণ, চাঁদাবাজি, খুন, ধর্ষণ, জুয়া, মাদক, দেহ ব্যবসাসহ যেকোনো (ক্রাইম) হলে এসব অপরাধের সংবাদ সংগ্রহ করতে গেলে আপনার উপর হামলা, মামলা করতে পারে অপরাধীরা। এজন্য আপনি সাংবাদিক হিসেবে আগে আপনার নিজের নিরাপত্তায় কাজ করবেন এবং আপনি নিজেই যদি সংবাদের শিরোনাম হয়ে যান, তাহলে সংবাদ সংগ্রহ করবে কে? তাই চোখ কান খোলা রেখেই সচেতনতায় সংবাদ সংগ্রহ করাটা ভালো।
বিশেষ ভাবে পুলিশ, সাংবাদিক, আইনজীবিদের কিছু বিষয় আছে যেমনঃ কি? কখন? কোথায়? কেন? কিভাবে? কোন ঘটনা ঘটছে, তার আগে থেকে জানেন না কেউ। বুঝলেন যে, কোন বিপদজনক ঘটনা ঘটতে পারে, তাহলে আগে নিজেকে নিরাপদে রেখে অন্যদের সেবা ও নিরাপত্তা দিবেন।

সাংবাদিকতা মহৎ পেশা তাই এই পেশাটাকে কেউ অপমাননা করার চেষ্ঠা করবেন না। নিজে শহীদ হলে আপনার মৃত্যুর পর কেউ আপনার জন্য কিছুই করবে না। আপনার পরিবারকে সহযোগিতা করবে না! আপনার খুনিরাও ধরাছোঁয়ার বাইরেই রয়ে যাবে। দেশে অনেক সাংবাদিক হত্যার শিকার হয়েছেন, তাদের হত্যার বিচার হয়েছে কি? কারণ সাংবাদিকরা জনগণের চাওয়া পাওয়ার সংবাদ প্রকাশ করেন, আসলে সাংবাদিক হিসেবে আপনি জনগণের বা সরকারের কাছ থেকে কি পেয়েছেন? প্রকৃত সাংবাদিকরাই দেশে অবহেলিত তাই নয় কি? উক্ত ব্যাপারে লিখতে গেলে ইতিহাস হবে। তাই ছোট একটি প্রশ্ন রেখে শেষ করছি, সাংবাদিক হিসেবে আপনারা জনগণের কাছ থেকে বা সরকারের কাছ থেকে কি পেয়েছেন? ওকে মতামত আপনাদের, বাংলাদেশে সাংবাদিকরা বড় ঝুঁকিতে ও নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছে। এ সমস্যার সমাধান আছে কি? তবে সকল সাংবাদিক এক হওয়া দরকার।

Please Share This Post in Your Social Media



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD