রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:৪২ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
ঠাকুরগাঁওয়ের রানীশংকৈলে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনকারী জড়িত অপরাধীদের গ্রেফতারের দাবীতে মানববন্ধন মুন্সীগঞ্জ মিরকাদিমে ডিবি পুলিশের অভিযানে ২৫ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ একজন গ্রেপ্তার করোনায় মানুষকে বাঁচাতে শেখ হাসিনা যখন যা দরকার সবই করছেন-অধ্যাপক ডাঃ এম এ আজিজ।। জনসেবার ইচ্ছা থেকেই ইউপি নির্বাচনে প্রার্থী হয়েছি- ত্রিশালের কাঁঠালে প্রার্থী ফাতেমা খাতুন।। অ্যাডভোকেট তালিকাভুক্তি হলেন সাংবাদিক তরিকুল ইসলামে ছোট ভাই ‘আবু সাহিদ’ বি‌ডি‌সি ক্রাইম বার্তার উপদ‌েষ্টা কে ফু‌লের শু‌ভেচ্ছা জানা‌লেন বি‌ডি‌সি ক্রাইম বার্তা প‌রিবার তারাকান্দায় প্রয়াত চেয়ারম্যানপুত্র শিশিরকে নৌকার মাঝি হিসাবে চান ভোটাররা। সরকারের ভিশন বাস্তবায়নে নিরলস প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন চেয়ারম্যান উজ্জল। ঢাকা-আশুলিয়া এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে নির্মাণকাজ উদ্বোধন করেছেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের দুর্যোগে জনগণের পাশে ছিল শেখ হাসিনা সরকার-পলক
সাভারের তিতাস গ্যাস কোম্পানির অভিযানে বিপুল পরিমানের পাইপ জব্দ

সাভারের তিতাস গ্যাস কোম্পানির অভিযানে বিপুল পরিমানের পাইপ জব্দ

নিজস্ব প্রতিনিধি হেলাল শেখঃ
ঢাকার সাভার জোনাল অফিস তিতাস গ্যাস টি এন্ড ডি কোম্পানী লিমিটেড এর অভিযানে বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রায় ১০০ কিলোমিটারেরও বেশি অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে বিপুল পরিমানের পাইপ জব্দ করা হয়েছে। সে সঙ্গে অবৈধ সংযোগ ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে ৮টি মামলা করছে কোম্পানি।

একদিকে অবৈধ সংযোগ অন্যদিকে বৈধ গ্রাহকের বিল বকেয়া থাকায় সরকারের কোটি কোটি টাকা লোকসান হচ্ছে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, সাভার ও আশুলিয়ার বিভিন্ন এলাকায় হাজার হাজার অবৈধ সংযোগ ও বৈধ গ্রাহকদের অনেকেরই বিল বকেয়া থাকার কারণে সরকারের কোটি কোটি টাকা লোকসান গুনতে হচ্ছে বলে অনেকেরই অভিমত।

বিশেষ করে একদিক কোম্পানির কর্মকর্তারা একদিকে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করছেন, অন্যদিকে আবার অবৈধভাবে সংযোগ দিয়ে অতিষ্ট করে তুলছে তাদেরকে। এরই প্রেক্ষিতে কোম্পানী বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে প্রায় ১০০ কিলোমিটার অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করেছেন, অফিসে ডুকতে হাতের বামপাশে দেখা যায় চোখে পড়ার মতো বিভিন্ন সাইজের পাইপ।

তিতাস অফিসের এক কর্মকর্তা বলেন, এর আগে প্রায় প্রতিদিনের অভিযানে ১০ থেকে ১৫ কিলোমিটার অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করার রেকর্ড রয়েছে এবং অবৈধ সংযোগ ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে থানায় ৮টি মামলা করা হয়েছে। এর মধ্যে আশুলিয়া থানায় একটি মামলায় ৪৭জনকে আসামী করা হয়েছে। সুত্র জানায়, এই এলাকায় প্রায় এক লাখেরও বেশি বৈধ ও অবৈধ সংযোগ রয়েছে।

উক্ত বিষয়ে জানতে চাইলে অনেকেই বলেন, আমরা এক একটি সংযোগ পেতে ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকা দিয়েছি। আমাদেরকে বলা হয়েছে দ্রুতই এই গ্যাসের সংযোগ বৈধ করে দেওয়া হবে। তারা আরও বলেন, এক একটা সংযোগের ব্যাপারে একাধিকবার টাকা নিয়েছে, তাহলে প্রশ্ন কারা এই টাকা গ্রহণ করেছেন? এবং একাধিকবার টাকা নেওয়ার পরেও সেই সংযোগ আবার বিচ্ছিন্ন করা হয় কেন? ভূক্তভোগীদের দাবী-শুধু আমাদের বিরুদ্ধে মামলা হচ্ছে কেন? শুধুমাত্র আমাদের বিচার করা হবে কেন? গ্যাস অফিসসহ সংশ্লিষ্ট যারা এর সাথে জড়িত তাদেরকেও আইনের আওতায় আনা হোক।

অফিস সুত্রে জানা গেছে, আবার ঈদের পর নিয়মিত অভিযান চালানো হবে। জানা গেছে, এখনও অনেক অবৈধ সংযোগ রয়েছে সাভার ও আশুলিয়ার ঘোষবাগসহ বিভিন্ন এলাকায়। ৮ থেকে ৯ মাস বৈধ গ্রাহকদের গ্যাস বিল বকেয়া রয়েছে।

গত ৩ মাসের তিতাসগ্যাস কোম্পানির অভিযানে অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করায় বর্তমানে বৈধ গ্রাহকরা মুটামুটি গ্যাস পাচ্ছেন। তেমন কোনো সমস্যা হচ্ছে না তাদের, এমনি কয়েকজন জানিয়েছেন, যা গত ৩ মাস আগেও অবৈধ সংযোগের কারণে গ্যাস টিপটিপ করে জ্বলত গ্যাসের চুলা।

এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সাভার আশুলিয়ায় অবৈধ ভাবে গ্যাস ব্যবহারকারী কাউকে গ্রেফতারের তথ্য পাওয়া যায়নি।

অফিস সুত্রে জানা গেছে, রোজার মাসে এখন অভিযান বিরত রাখা হয়েছে। ঈদের পর থেকে আবার অভিযান চলবে।

জানা গেছে, ঢাকার শিল্পাঞ্চল সাভার, আশুলিয়ায় প্রায় ১ কোটি মানুষের বসবাস। সেখানে শিল্প কারাখানার শ্রমিক কর্মচারী ও নিম্ন আয়ের সাধারণ মানুষের সংখ্যাই বেশী। এ বিষয়ে গার্মেন্টস কর্মী ইসরাত জাহান (২৭) বলেন, গ্যাস কোম্পানি ও সংশ্লিষ্ট অনেকেই অবৈধ সংযোগের সাথে জড়িত, তদন্ত করলে কেচো খুঁড়তে সাপের সন্ধান পাওয়া যাবে! এখনও অনেক বাসা বাড়িতে অবৈধ গ্যাস সংযোগ রয়েছে।

এ বিষয়ে স্থানীয় নাজমুল হোসেন বলেন, গ্যাস লাইন বিচ্ছিন্ন করা হলেও তবুও অনেকেই বাসা ভাড়া কমাননি। সাবেক ভাড়া গুনতে হচ্ছে ভাড়াটিয়াদের এ যেন দেখার কেউ নেই।

গত ৭ জুন ২০১৮ ইং সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, ঢাকার সাভার ও আশুলিয়ার ঘোষবাঘ, জামগড়া, ভাদাইল, চিত্রশাইল, বেরুণ ছয়তালা ও গুমাইল ও কাঠগড়াসহ বিভিন্ন এলাকায় তিতাস গ্যাস এর এখনও অনেক অবৈধ সংযোগ লাইন রয়েছে।

তিতাসগ্যাস কোম্পানির ব্যাবস্থাপক মোঃ সিদ্দিকুর রহমানের নেতৃত্বে বিশেষ অভিযানে প্রায় প্রতি দিনই ১০ থেকে ১৫ কিলোমিটার অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়, এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত সাভার আশুলিয়ায় প্রায় ১০০ কিলোমিটারেরও বেশি অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে বলে দাবি করেন তিনি।

সাভার আশুলিয়ায় এসব অভিযানে উপস্থিত ছিলেন, সাভার তিতাস গ্যাস কোম্পানির ব্যাবস্থাপক মোঃ সিদ্দিকুর রহমান, উপ: ব্যাবস্থাপক হাজী আব্দুর রহিম, মোঃ হাসান, মোঃ আনিছুজ্জামান, মোঃ মান্নান, টেকনিশিয়ান মোঃ হাবিবুর রহমান, মোঃ গিয়াস উদ্দিন। এসব অভিযানে তাদের নিরাপত্তায় কাজ করেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী।

এ বিষয়ে সাভার জোন তিতাস কোম্পানির ব্যাবস্থাপক মোঃ সিদ্দিকুর রহমান জানান, তিতাস কোম্পানির গ্যাস সরকারি সম্পদ, অবৈধভাবে যারা সংযোগ ব্যবহার করছে, তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। ইতিপূর্বে অবৈধ সংযোগ ব্যবহারকারীদের বিরুদ্ধে থানায় ৮টি মামলা করা হয়েছে। এর মধ্যে আশুলিয়া থানার একটি মামলা নং-৪৭, তারিখ ১২/০৪/২০১৮ ইং। এই মামলায় ৪৭জনকে আসামী করা হয়েছে।

এ বিষয়ে তিতাস কোম্পানির টেকনিশিয়ান মোঃ হাবিবুর রহমান এ প্রতিনিধিকে জানান, গত ৩ মাসের অভিযানে প্রায় ১০০ কিলোমিটারেরও বেশি অবৈধ সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে এবং দোষীদের বিরুদ্ধে থানায় ৮টি মামলা হয়েছে। দোষী ব্যক্তি যেই হোক না কেন তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। এখন রমজান মাস তাই অভিযান বিরত আছে, ঈদের পর আবার নিয়মিত অভিযান চলবে বলে তিনি জানান।

Please Share This Post in Your Social Media



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD