শুক্রবার, ২২ অক্টোবর ২০২১, ১২:০০ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
চরতারাপুরে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী লাঠি খেলা অনুষ্ঠিত আকস্মিক বন্যায় ৫০ হাজার মানুষ পানিবন্দি তিস্তার পানি বিপদসীমার ৭০ সেঃ মিঃ উপরে আশুলিয়ায় অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে ৩টি গরু ও স্বর্ণালংকার লুট সাম্প্রতিক ধর্মীয় উস্কানিমূলক কর্মকাণ্ডের জন্য লন্ডনে থাকা তারেক রহমানই দায়ী-হুইপ স্বপন ধামইরহাট উপজেলা আওয়ামীলীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত ঝিনাইদহে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে নারীর মৃত্যু সাম্প্রদায়িক হামলার প্রতিবাদে ঝিনাইদহে মানববন্ধন নড়াইল জেলার বিভিন্ন ধর্মের মানুষের সঙ্গে আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক মতবিনিময় সভা বানারীপাড়া সৈয়দকাঠি ইউনিয়ন নির্বাচনে মাওলানা মোঃ কবির হোসেনের মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষনা বানারীপাড়ায় আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত
পনির আভাবে পাটক্ষেত ফেটে চৌচির সাথে আছে পোকার আক্রমণ, দুশ্চিন্তায় সাতক্ষীরার কৃষক

পনির আভাবে পাটক্ষেত ফেটে চৌচির সাথে আছে পোকার আক্রমণ, দুশ্চিন্তায় সাতক্ষীরার কৃষক

মো: আজিজুল ইসলাম(ইমরান)
সাতক্ষীরা শহর প্রতিনিধি:
প্রচন্ড তাপদাহে ও পানির অভাবে জেলার পাট চাষীরা বিপাকে পড়েছেন। পাটক্ষেত ফেটে চৌচির হয়ে যাচ্ছে। সারা দেশে বৃষ্টি পাত হলেও সাতক্ষীরা জেলায় বৃষ্টি নেই বললেই চলে। পানির অভাবে ক্ষেতের বেশির ভাগ অংশে পাট মারা যাচ্ছে ও পাতা কুকড়িয়ে যাচ্ছে। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে জেলার ১২ হাজার ২৩০ হেক্টর জমিতে পাটের আবাদ হয়েছে। লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে এক লাখ ৩৭ হাজার ৬২৪ বেল। এর মধ্যে সদর উপজেলার চার হাজার ৮৫৫ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছে। লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৫৪ হাজার ৬৩৩ বেল। কলারোয়া উপজেলার চার হাজার ৫ হেক্টর জমিতে আবাদ হয়েছে। উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৪৫ হাজার ৬৮ বেল। তালা উপজেলার তিন হাজার ১৫ হেক্টর জমিতে ৩৩ হাজার ৯২৮ বেল, দেবহাটা উপজেলার ৯০ হেক্টর জমিতে এক হাজার ১৩ বেল, কালিগঞ্জ উপজেলার ১৭০ হেক্টর জমিতে এক হাজার ৯১৩ বেল, আশাশুনি উপজেলার ৯০ হেক্টর জমিতে এক হাজার ১৩ বেল ও শ্যামনগর উপজেলার পাঁচ হেক্টর জমিতে ৫৬ বেল পাট উৎপাদানের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে আরো জানা যায়, ২০১৬-১৭ খরিপ-১ এ জেলাতে ১১ হাজার ৬৩০ হেক্টর জমিতে এক লাখ ২৭ হাজার ৯৩০ বেল পাট উৎপাদন হয়েছিল। যার মধ্যে সদর উপজেলার চার হাজার ৭৮০ হেক্টর জমিতে ৫২ হাজার ৫৮০ বেল, কলারোয়া উপজেলার তিন হাজার ৯০ হেক্টর জমিতে ৩৩ হাজার ৯৯০ বেল, তালা উপজেলার তিন হাজার ৩৫০ হেক্টর জমিতে ৩৬ হাজার ৮৫০ বেল, দেবহাটা উপজেলার ১০৪ হেক্টর জমিতে এক হাজার ১৪০ বেল, কালিগঞ্জ উপজেলার ১৮৫ হেক্টর জমিতে দুই হাজার ৩৫ বেল, আশাশুনি উপজেলার ১২০ হেক্টর জমিতে এক হাজার ৩২০ বেল ও শ্যামনগর উপজেলার এক হেক্টর জমিতে ১১ বেল পাট উৎপাদানের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। আর এসব জমির অধিকাংশতেই আবাদ করা হয়েছে তোষা জাতের পাট। জেলার কৃষকরা অভিযোগ করে বলেন, নিম্নমানের ভেজাল বীজ, প্রাকৃতির বিরূপ প্রভাব এবং স্থানীয় কৃষি কর্মকর্তাদের উদাসীনতার কারণে জেলায় পাটের এমন অবস্থা। সাতক্ষীরা সদরের কৃষক আমিনুর রহমান জানান, পানির অভাবে জমি ফেটে চৌচির হয়ে যাচ্ছে। পাট গাছের আগা শুকিয়ে যাচ্ছে। অন্যদিকে পাটক্ষেত পোকার আক্রমণে আক্রানত্ম হয়েছে। মাঠের পর মাঠ পাটক্ষেত হলুদ বর্ণ ধারণ করেছে। জেলায় এবার কৃষকের কয়েক’শ কোটি টাকা ক্ষতির আশঙ্কা করছে পাট চাষীরা। জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক কৃষিবিদ কাজী আব্দুল মান্নান বলেন, জেলায় খুব ভালোমানের পাট উৎপাদন হয়। এ বছর বৃষ্টি কম হওয়ায় কিছু সমস্যা দেখা দিয়েছে। তবে, কৃষকদের করণীয় সম্পর্কে নিয়মিত পরামর্শ দেওয়া হচ্ছে। আশা করছি, উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ছাড়িয়ে যাবে।

Please Share This Post in Your Social Media



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD