বৃহস্পতিবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৯:১২ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
ময়মনসিংহে ওসি কামালের নেতৃত্বে পুলিশের অভিযানে মাদক ব্যবসায়ীসহ গ্রেফতার-১৩ জাতীয় তরুণ পার্টি ফুলবাড়িয়া পৌর শাখার আহবায়ক কমিটির অনুমোদন।। কেন্দুয়ায় ধানের পোকা চিহ্নিত করতে ‘আলোক ফাঁদ’ স্থাপন হালুয়ারঘাট-ধারারগাঁও সেতু নির্মাণের দাবীতে বিশাল মানব বন্ধন ও জনসভা ঝিকরগাছার শংকরপুর ইউনিয়ন বিএনপির সভাপতির জানাজায় বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা অমিত তারাকান্দায় ৫৩ পূজামন্ডপের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার আশ্বাস -ইউএনও’র।। ঝিনাইদহে অফিসিয়ালি তদারকি ছাড়া ৮৮ কোটি টাকার সড়ক নির্মাণ হচ্ছে! নড়াইলে মোটর সাইকেল দুর্ঘটনায় এসএসসি পরীক্ষার্থী নিহত নাচোলে তাল গাছের বীজ বপন মহাসংকটে স্বরূপকাঠি সমিতি
ঢাকার সায়েদাবাদে ১৫০ টাকার ভাড়া আদায় করা হচ্ছে ৫০০

ঢাকার সায়েদাবাদে ১৫০ টাকার ভাড়া আদায় করা হচ্ছে ৫০০

হেলাল শেখঃ
যাত্রীবাহি বাসের টিকিট নাই বলে ভাড়া বেশি দিলে আবার টিকিট পাওয়া যায় বলে সিলেটগামী একটি বাসের সামনে যাত্রীদের এমনই হাহাকার দেখা যায়।

সন্ধার আগে চাঁদ দেখা গেলেই রাত পোহালে ঈদ। আর এই ঈদের আনন্দ পরিবার-পরিজনের সঙ্গে উপভোগ করতে শেষ মুহূর্তে গ্রামের বাড়িমুখে ছুটছে নগরবাসী।

এসব ঘরমুখো মানুষের এমন ভিড় নেমেছে ঢাকা থেকে দেশের দক্ষিণ-পূর্ব ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলে যাওয়ার বাস টার্মিনাল সায়েদাবাদেও।

বিশেষ করে যাত্রীর ভিড় ক্রমেই বাড়তে থাকলেও গাড়িরই সহসা দেখা মিলছে না টার্মিনালে। রাস্তা ফাঁকা দেখা যাচ্ছে। এরমধ্যে দু’চারটি বাস ছাড়লেও তারা যাত্রীদের জিম্মি করে আদায় করছে দ্বিগুণেরও অনেক বেশি ভাড়া। বাস সংকটে যেমন যাত্রীরা পড়ছেন ভোগান্তিতে, তেমনি ‘পকেট কাটা’ একরকম গলাকাটা ৃভাড়া আদায়ে প্রকাশ করছেন ক্ষোভও রয়েছে যাত্রীদের।

জানা গেছে, সায়েদাবাদ থেকে সাধারণত পাবর্ত্য চট্টগ্রাম ও তার আশপাশের অঞ্চল, বৃহত্তর নোয়াখালী, কুমিল্লা ও সিলেট অঞ্চলে ছেড়ে যায় বাস।

শুক্রবার (১৫ জুন) সকাল ৭টার দিকে টার্মিনালে গিয়ে দেখা যায়, হাজারো যাত্রী এ-কাউন্টার থেকে ও-কাউন্টারে ঘুরছেন, কাঙ্ক্ষিত বাসের টিকিট পেতে। কেউ একা, কেউবা স্ত্রী-সন্তান নিয়ে টার্মিনালে ঘণ্টার পর ঘণ্টা অপেক্ষা করছেন। কয়েকজন সাংবাদিক পরিচয় পেয়েই বাসের সংকট ও বাড়তি ভাড়া আদায়ের ব্যাপারে দৃষ্টি আকর্ষণ করে ক্ষোভ প্রকাশ করেন যাত্রীরা।

এ বিষয়ে পরিবহনের হেলপার এবং কাউন্টার মাস্টারদের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে যানবাহনের যেমন চাপ পড়েছে, তেমনি দেখা দিয়েছে ধীরগতি। এজন্য বাস ঢাকায় ফিরতেও দেরি হচ্ছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ জুন) সন্ধ্যার পর থেকে যাত্রীদের চাপ বেড়েছে উল্লেখ করে তারা বলছেন, বিগত দিনগুলোতে যাত্রীদের ভিড় কমছিলো, তখন গাড়িতে সিট খালি ছিলো। কিন্তু সব প্রতিষ্ঠান ছুটি হওয়ায় শুক্রবার যাত্রীর চাপ বেড়ে গেছে। আর বাস সংকটের এই সুযোগেই যাত্রীদের কাছ থেকে হাতিয়ে নেওয়া হচ্ছে বাড়তি টাকা। নিরুপায় হয়ে যাত্রীরাও বাধ্য হচ্ছেন মাত্রাতিরিক্ত ভাড়া পরিশোধে।

ঢাকা থেকে কুমিল্লার নাঙ্গলকোট-দৌলতখানগামী জোনাকি পরিবহনের একটি গাড়ি টার্মিনালে ঢুকতেই হুমড়ি খেয়ে পড়তে দেখা যায় যাত্রীদের। সেখানে যাত্রীদের বলা হয়, সিটের ভাড়া এক দাম মাত্র ৫০০ টাকা, দাঁড়িয়ে গেলে ৩০০ টাকা। মুহূর্তের মধ্যেই দেখা গেলো যাত্রীসাধারণ গাড়ি ভর্তি হয়ে গেলো। একই অবস্থা কুমিল্লাগামী তিশা, প্রাইম এশিয়াসহ কুমিল্লা, ফেনী, নোয়াখালী, লক্ষ্মীপুরগামী পরিবহনগুলোতেও। সাধারণত কুমিল্লার ভাড়া থাকে ১৫০-১৮০ টাকা, আর ফেনীর ভাড়া থাকে ২৩০-২৫০ টাকা। কিন্তু হেলপার ও কন্ডাকটররা সাফ বলে দিচ্ছেন, যেখানেই নামবেন ভাড়া একদাম ৫০০ টাকা, এর কম হলে গাড়িতে সে উঠবেন না।

জানা যায়, সায়েদাবাদ থেকে খুলনাগামী বনফুল পরিবহন, চট্টগ্রাম-কক্সবাজারগামী সিডিএম ট্র্যাভেলস, সিলেটগামী মিতালী পরিবহনসহ বিভিন্ন পরিবহনও আদায় করছে দ্বিগুণেরও বেশি ভাড়া। এ যেন দেখার কেউ নেই।

অন্যদিকে সিলেটের হবিগঞ্জগামী অগ্রদূত পরিবহনের টিকিট কেটে গাড়ির অপেক্ষায় বসে আছেন মনিরুজ্জামান নামে এক যাত্রী। ভোর থেকে তার সঙ্গে অপেক্ষায় পরিবারের অন্য সদস্যরাও। গাড়ি কখন আসবে কেউ বলতে পারছেন না বলে জানান তিনি। মনিরুজ্জামান বলেন, মিতালী পরিবহনের টিকিট কাটতে গিয়ে শুনি ৪০০ টাকার ভাড়া এখন ৮২০ টাকা দিতে হবে, তখন এখানে চলে আসি।

এরপর অন্যরা হলেন, বোন-ভাগনিকে নিয়ে গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার মুরাদনগর যেতে সায়েদাবাদ টার্মিনালে আসা মোঃ দুলাল মিয়া সাংবাদিকদের বলেন, কারখানা গতকাল বন্ধ হওয়ায় আজ ভোরেই গাড়ি ধরতে এসেছি। এসে দেখি গাড়ি নেই।

এসময় ভাড়া কত নিচ্ছেন জানতে চাইলে তিনি বলেন, গাড়িই তো নেই, ভাড়ার কথা কী বলবো। এমনিতে ভাড়া ১৬০ টাকা। অনেক গাড়ির স্টাফ দাবি করছে ৫০০ টাকা।

এসব বাড়তি ভাড়া আদায়ের ব্যাপারে জানতে চাইলে ঢাকা-কুমিল্লা রুটের তিশা পরিবহনের কাউন্টার মাস্টার আবুল হাশেম অন্যকথা বলেন, সারা রাস্তায় জ্যাম, গাড়ি চলে না। আবার ওদিক থেকে গাড়ি ঢাকায় আসছেও একদম ফাঁকা। তাই ভাড়া নিচ্ছি ‘একটু বেশি’।

উক্ত ব্যাপারে বিআরটিএ’র সায়েদাবাদ ভিজিল্যান্স টিমের মোটরযান পরিদর্শক (এমভিআই) মাহবুবুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, অতিরিক্ত ভাড়ার বিষয়ে আমারা তদারকি করছি। যারা যাত্রীদের কাছ থেকে অতিরিক্ত ভাড়ার নিচ্ছেন তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিচ্ছি।

Please Share This Post in Your Social Media



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD