শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১:১৬ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
তানোরে সুজনের ক্রীড়া সামগ্রী বিতরণ মুন্সীগঞ্জ‌ে টঙ্গীবাড়ী‌র ধীপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক সম্মেলন অনুষ্ঠিত ভারত-বাংলাদেশ সম্পর্ক গভীর এবং কালের বিবর্তনে উত্তীর্ণঃ নৌ প্রতিমন্ত্রী কাহালু এক নারীর বেপরয়া জীবন যাপনে অতিষ্ট গ্রামবাসী কুমিল্লার দাউদকান্দিতে অটোরিকশা চালকের মরদেহ উদ্ধার পঞ্চগড়ে ইজিবাইকের ধাক্কায় শিশুর মৃত্যু কেশবপুরে কুকুরের কামড়ে ১৩শিশুসহ ২৫ জন আহত প্রতিদিন আক্রান্তের সংখ্য বাড়ছে গজারিয়া চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী আলম সাহেবের শশুরের কুলখানি। নড়াইল পৌরবাসী সামান্য বৃষ্টিতে নাকাল জল জন্তনায় ধামইরহাটে ২টি ভাঙ্গা কালভার্ট দ্রুত মেরামত করা জরুরি
রাজধানী ঢাকার আশুলিয়াসহ সারাদেশে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১৪

রাজধানী ঢাকার আশুলিয়াসহ সারাদেশে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ১৪

ডেস্ক রিপোর্টঃ

রাজধানী ঢাকার আশুলিয়াসহ সারাদেশে মাদকবিরোধী অভিযানে র‌্যাব ও পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ১৪ জন নিহত হয়েছে। মঙ্গলবার দিবাগত রাত থেকে বুধবার ভোর পর্যন্ত এসব ঘটনা ঘটে।

রাজধানীর ভাসানটেক দেওয়ানপাড়া লোহার ব্রিজ এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তিনজন নিহত হয়েছে। র‌্যাবের দাবি, নিহতরা মাদক বিক্রেতা ছিলেন।

মঙ্গলবার (২৯ মে)২০১৮ইং দিবাগত রাত ৩টার দিকে এ বন্দুকযুদ্ধের ঘটনা ঘটে। নিহতরা হলেন- আতাউর রহমান আতা (৪৬), বাপ্পি (৩৮) ও মোস্তফা হাওলাদার ওরফে কসাই মোস্তফা (৫০)ঘটনাস্থল থেকে দুটি পিস্তল ও বিপুল পরিমাণ ইয়াবা উদ্ধার করা করেছে র‌্যাব।

আশুলিয়া (ঢাকা) আশুলিয়ায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক ডাকাত নিহত হয়েছে। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে দেশীয় অস্ত্র উদ্ধার করা হয়, মঙ্গলবার দিবাগত গভীর রাতে টঙ্গী-আশুলিয়া-ইপিজেড সড়কের মরাগাঙ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। তবে নিহতের নাম-পরিচয় জানা যায়নি।

মাগুরা
মাগুরার শহরতলির বাটিকাডাঙ্গা মাঠপাড়া এলাকা থেকে মঙ্গলবার রাত ২টার দিকে তিন মাদক ব্যবসায়ীর গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ।

নিহতরা হলেন- শহরের ভায়না চোপদারপাড়া এলাকার মহিউদ্দিন চোপদারের ছেলে বাচ্চু চোপদার (৫৫), ইসলামপুর এলাকার আবদুর রাজ্জাক ঢালির ছেলে রায়হান ঢালি ব্রিটিশ (২০) এবং নতুনবাজার বৈরাগিপাড়ার খোকন অধিকারীর ছেলে কিশোর অধিকারী কালা (৪২)।

সদর থানার ওসি ইলিয়াস হোসেন জানান, রাত ১টার দিকে টহল পুলিশ গোলাগুলির সংবাদ পেয়ে বাটিকাডাঙ্গা মাঠপাড়া এলাকায় গিয়ে রক্তাক্ত অবস্থায় তিনজনকে পড়ে থাকতে দেখে। পরে হাসপাতালে নেয়ার পথে তাদের মৃত্যু হয়।

ঘটনাস্থল থেকে ৩২০ গ্রাম হেরোইন, এক কেজি গাঁজা, ছয় বোতল ফেনসিডিল, ছয়টি রাইফেলের গুলি ও আটটি গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়েছে।

কুমিল্লা
কুমিল্লায় পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে রোছমত আলী (৪০) নামে এক মাদক বিক্রেতা নিহত হয়েছে।

পুলিশের দাবি, নিহত রোছমত আলী একজন তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ী এবং তার বিরুদ্ধে থানায় ৭টি মাদকের মামলা রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে এক রাউন্ড কার্তুজসহ একটি পাইপগান ও ৪০ কেজি গাঁজা উদ্ধার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত পৌনে ১টার দিকে জেলার বুড়িচং উপজেলার লড়িবাগ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত ওই মাদক ব্যবসায়ী উপজেলার ছয়গ্রাম এলাকার মৃত আলী আহাম্মদের ছেলে।

বুড়িচং থানার ওসি মনোজ কুমার দে জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে মাদক উদ্ধার করতে উপজেলার লড়িবাগ এলাকায় রাস্তার পাশে অবস্থান নেয় পুলিশ। সেখানে মাদক ব্যবসায়ী রোছমত ও তাদের সহযোগীরা পৌঁছলে পুলিশ তাদের আটকের চেষ্টা করে। এ সময় পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় তারা। পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। এতে মাদক ব্যবসায়ী রোছমত গুলিবিদ্ধ হয়ে গুরুতর আহত হন। তাকে উদ্ধার করে কুমিল্লা মেডিকেল হাসপাতালে নেয়ার পর সেখানে দায়িত্বরত চিকিৎসক রোছমতকে মৃত ঘোষণা করেন। ওই অভিযানের সময় তিন পুলিশ সদস্য আহত হয়েছেন।

যশোর
যশোরের বেনাপোলে দু’দল মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে ‘গোলাগুলিতে’ দু’জন নিহত হয়েছে। বুধবার ভোরে বেনাপোলের বড়আঁচড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন- বেনাপোল ভবেরবেড় গ্রামের মৃত শাহাজানের ছেলে লিটন (৩৪) ও অজ্ঞাত (৪০)।

বেনাপোল পোর্ট থানার ওসি অপূর্ব হাসান জানান, ভোরে বেনাপোল বড়আঁচড়া এলাকায় দুদল মাদক ব্যবসায়ীর মধ্যে গোলাগুলি হচ্ছে, এমন খবর পেয়ে পুলিশ সেখানে যায়। পুলিশের উপস্থিতি টের পেয়ে দুর্বৃত্তরা পালিয়ে যায়। এ সময় সেখানে দুজনকে পড়ে থাকতে দেখে পুলিশ তাদের উদ্ধার করে। নিহতদের লাশ ময়নাতদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

ঘটনাস্থল থেকে ১০ কেজি গাঁজা, একটি দেশি আগ্নেয়াস্ত্র, দুই রাউন্ড গুলি ও গুলির খোসা উদ্ধার করা হয়।

টেকনাফ (কক্সবাজার)
কক্সবাজার সমুদ্রসৈকতের কবিতাচত্বর এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নেত্রকোনার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ১০ মামলার আসামি মুজিবুর রহমান (৪২) নিহত হয়েছে।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত ১২টার দিকে র‌্যাবের একটি দল মাদক ব্যবসায়ীদের আটকের উদ্দেশ্যে অভিযানে গেলে এ ঘটনা ঘটে।

র‌্যাব-৭ কক্সবাজার ক্যাম্পের ইনচার্জ মেজর রুহুল আমিন জানান, মাদক ব্যবসায়ীদের একটি দল কক্সবাজার সমুদ্রসৈকতের কবিতাচত্বর এলাকায় অবস্থান করছে- এমন খবর পেয়ে সেখানে অভিযানে যায় র‌্যাব।

পরে ওই এলাকায় মাদক ব্যবসায়ীদের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নেত্রকোনার শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী ১০ মামলার আসামি মুজিবুর রহমান (৪২) নিহত হয়েছেন। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শুটারগান, ৫টি গুলি ও খালি গুলির খোসা এবং ছয় হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করা হয়।

নড়াইল
নড়াইলে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ সজীব (২৬) নামে এক মাদক বিক্রেতা নিহত হয়েছে।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত ২টার দিকে নড়াইল-লোহাগড়া সড়কের মালিবাগ এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। সজীব নড়াইল সদর উপজেলার দত্তপাড়া গ্রামের আলতাবের ছেলে।

পুলিশের দাবি, সজীবের বিরুদ্ধে থানায় একাধিক মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা রয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে ২৭৬ পিস ইয়াবা, রিভলবার, দুই রাউন্ড গুলি, তিনটি দা উদ্ধার করা হয়েছে।

সদর থানার ওসি আনোয়ার হোসেন জানান, মাদক বিক্রেতারা এলাকায় অবস্থান করছেন, এমন সংবাদের ভিত্তিতে রাতে মালিবাগ এলাকায় অভিযান চালানো হয়। টের পেয়ে মাদক বিক্রেতারা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এ সময় পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে।

এক পর্যায়ে সজীব গুলিবিদ্ধ হয়ে আহত হন এবং তার সঙ্গীরা পালিয়ে যান। পরে সবুজকে উদ্ধার করে নড়াইল সদর হাসপাতালে নিলে দায়িত্বরত চিকিৎসক মৃত ঘোষণা করেন।

চট্টগ্রাম
চট্টগ্রাম নগরের টাইগারপাসের পলোগ্রাউন্ড এলাকায় র‌্যাবের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ইসহাক নামে (৩৫) এক যুবক নিহত হয়েছে।

র‌্যাবের দাবি, নিহত ইসহাক মাদক বিক্রেতা ছিলেন। ইসহাকের বিরুদ্ধে থানায় ১৯টি মামলা রয়েছে। ইসহাক নগরের কোতোয়ালি থানার ঝাউতলা কলোনির মোহাম্মদ আলীর ছেলে।

মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।

ঘটনাস্থল থেকে চার হাজার পিস ইয়াবা, একটি ওয়ান শুটারগান, পাঁচ রাউন্ড গুলি ও পাঁচ রাউন্ড গুলির খোসা উদ্ধার করা করেছে র‌্যাব।

র‌্যাব ৭-এর উপঅধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কমান্ডার আশেকুর রহমান জানান, রাতে টাইগারপাসের পলোগ্রাউন্ডে মাদক বিক্রেতাদের অবস্থানের খবর পেয়ে র‌্যাবের মোবাইল টিম অভিযান চালায়। টের পেয়ে মাদক বিক্রেতারা র‌্যাবকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। এ সময় র‌্যাবও পাল্টা গুলি ছোড়ে। একপর্যায়ে ইসহাক গুলিবিদ্ধ হয়ে নিহত হন এবং তার সঙ্গীরা পালিয়ে যান।

চুয়াডাঙ্গা
চুয়াডাঙ্গায় পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ তানজিল হোসেন (৩০) নামে এক যুবক নিহত হয়েছে।

পুলিশের দাবি, নিহত তানজিল শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। বন্দুকযুদ্ধের ঘটনায় পুলিশের তিন সদস্য আহত হয়েছেন।

চুয়াডাঙ্গা শহরতলির সাতগাড়ী এলাকার মাঠে মঙ্গলবার দিনগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত তানজিল হোসেন জেলা শহরের দৌলাতদিয়াড় গ্রামের মৃত রমজান আলীর ছেলে।

ঘটনাস্থল থেকে একটি ওয়ান শুটারগান, চার রাউন্ড গুলি ও এক বস্তা ফেনসিডিল উদ্ধার করেছে পুলিশ।

চুয়াডাঙ্গা সদর থানার ওসি দেলোয়ার হোসেন খান জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে খবর পেয়ে রাত আড়াইটার দিকে পুলিশের একটি দল ঘটনাস্থলে পৌঁছানো মাত্র মাদক ব্যবসায়ীরা পুলিশের ওপর গুলিবর্ষণ করে। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। একপর্যায়ে মাদক ব্যবসায়ীরা পিছু হটলে ঘটনাস্থল থেকে তানজিলের গুলিবিদ্ধ মরদেহ উদ্ধার করা হয়।

লাশ উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় চুয়াডাঙ্গা সদর থানার এসআই রবিউল ইসলাম ও কনস্টেবল আব্দুস সবুর আহত হয়েছেন।

নিহত তানজিল জেলার একজন শীর্ষ মাদক ব্যবসায়ী। তার নামে চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় ১২টি মামলা রয়েছে বলে জানান ওসি।

আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যদের তথ্যে জানা গেছে, উক্ত বন্দুকযুদ্ধে যারা নিহত হয়েছে তাদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে

Please Share This Post in Your Social Media



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD