বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:৩৪ পূর্বাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
আসন্ন ১০নং জামালপুর ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ২বারের সফল মেম্বার আবারো টিউবওয়েল মার্কার সদস্য পদপ্রার্থী ফসলি জমিতে ইটভাটা-পরিবেশ দূষণ হলেও সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের নিরবতা নিয়ন্ত্রণহীন স্বর্ণের দাম-হাজার হাজার শ্রমিক বেকার হয়ে মানবেতর জীবনযাপন সুজানগরে পাট ব্যবসায়ী ও স্টেক হোল্ডারদের সাথে উদ্বুদ্ধকরণ সভা পাইকগাছার গড়ইখালী আলমশাহী ইনিস্টিউটের বার্ষিক ফলাফল ঘোষনা পুরস্কার বিতরণ আজ ঐতিহাসিক পাইকগাছার কপিলমুনি মুক্ত দিবস নড়াইলের লোহাগড়া ১২ ইউপিতে প্রতীক বরাদ্দ আগামী ২৬ নভেম্বর। নির্বাচন বগুড়ায় পুলিশের হয়রানি বন্ধে সাংবাদিক সম্মেলন নওগাঁর আত্রাইয়ে আইজিপি কাপ-২০২১ জাতীয় যুব কাবাডি প্রতিযোগিতার উদ্বোধন ঈদগাঁওর সার্বিক নিরাপত্তার নিশ্চিতে পুলিশের অভিযান আটক -২
রমজানের আগেই বেড়েছে সবজি ও মাছ মাংসের দাম

রমজানের আগেই বেড়েছে সবজি ও মাছ মাংসের দাম

মো: বাবুল হোসাইন, পঞ্চগড় জেলা প্রতিনিধি: পঞ্চগড়ে রমজানের আগেই দ্রব্যমূল্য উদ্ধগতি। সবজিসহ মাছ, মুরগীর সরবরাহ কমে গেছে। সাথে বেড়েছে দাম। ব্রয়লার মুরগীর দর প্রতি কেজিতে বেড়েছে ৩০ থেকে ৪০ টাকা। মুরগীর ব্যবসায়ীরা বলছেন, খামারী ও পাইকারী বিক্রেতারা ব্রয়লার মুরগী সরবরাহ কমিয়ে দিয়েছে। মাছ ব্যবসায়ী ও পুকুরের মালিকরাও এখন পুকুর হতে মাছ ধরা বন্ধ রেখেছে প্রায়। তাই গত শুক্রবার ও শনিবার পঞ্চগড় বাজারে গিয়ে সাধারণ মানুষ হতাশ হয়েছে। বিশেষ করে, রমজানকে সামনে রেখে তারা বেশ উদ্বিগ্ন। শবেবরাতের আগেই পাকিস্তানী সোনালী মুরগী প্রতি কেজি বিক্রি হয় ২৮০ থেকে ২৯০ টাকা। এছাড়া, দেশী মুরগীর সরবরাহ বলতে গেলে নিম্নমুখী। যদিও পাওয়া যায় দর আকাশচুম্বি। বর্তমানে দেশী মুরগী ৩৫০ টাকা থেকে ৩৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। তাও সরবরাহ অতি অল্প। শনিবার (০৫ মে) পঞ্চগড় বাজার ঘুরে দেখা গেছে, পাকিস্তানী ও দেশী মুরগী উধাও। মাছের বাজার প্রায় শূন্য। যদিও সরবরাহ কিছুটা দেখা যায়, দাম কেজিতে ৫০ থেকে ১০০ টাকা বেশী। এতোদিন চাষের পাবদা মাছ বিক্রি হতো ৪০০ টাকা। সেখানে দেখা গেছে, ৪৪০ থেকে ৫০০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে এখন। গরু ও খাসির দর স্থিতিশীল রয়েছে। খাসি বড় ৬০০ থেকে ৭০০ টাকা। ছোট খাসি ও ছাগল ৫০০ থেকে ৫৫০ টাকা প্রতি কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। রমজানে অধিক দাম পাওয়ার আশায় সবজির সরবরাহ কৃষকরা কমিয়ে দিয়েছে। এমনটাই বলছেন সবজির পাইকারী ও খুচরা বিক্রেতারা। ফলে দাম কিছুটা বাড়তি দেশী আলু বড়টা পাইকারী বিক্রি হচ্ছে ১৮ থেকে ২০ টাকা। কাডিনাল পাইকারী ১২ টাকা। পটলের সরবরাহ কমে গেছে। খুচরা ৩৬ থেকে ৪০ টাকা দরে বিক্রি হচ্ছে। দেশী পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে খুচরা ৪০ টাকা ও পাইকারী ৩৬ টাকা। এলসি পিঁয়াজ পাইকারী ২৫ ও খুচরা বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকা। পোল্ট্রি ডিমের দাম হঠাত করেই কমে গেছে। কদিন আগেই যে ডিম ছিলো ২৬ তা শনিবার কমে ২৪ টাকা হালিতে নেমেছে। দেশী মুরগীর ডিমের দাম কমেনি। বিক্রি হচ্ছে ৪৪ টাকা হালি দরে। মুদি পন্যের দাম তেমন একটা বাড়েনি। তবে ছোলার বাজারটা হয়তো অসি’র হতে পারে। বর্তমানে ৬০ থেকে ৭০ টাকা দরে প্রতি কেজি ছোলা বিক্রি হচ্ছে। বাড়েনি সয়াবিন তেলের দাম। চিনির দামে কিছুটা হেরফের হতে পারে। বর্তমান চিনির প্রতি কেজি দর ৫৪ থেকে ৬০ টাকা। বাড়তে শুরু করেছে আমদানীর উপড় নিভর্রশীল আঙুর ও সহ অন্য সব ফলের দামও। আঙুর কদিন আগেই ২০০ থেকে ২২০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে। শনিবার গিয়ে দেখা গেছে, প্রতি কেজি ৪০০ টাকা। আপেল ১৫০ থেকে ১৭০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। রমজানের প্রভাব আগেভাগেই পড়েছে মুরগী ও মাছের উপড়। এর চাহিদাই বেশী। ফলে সাধারন মানুষ রমজানে কি করবে তাই নিয়ে চিন্তিত। এছাড়া মাথায় হাত পড়েছে, শ্রমজীবিদের। যেখানে ব্রয়লার ও পাকিস্তানী মুরগীর দাম বেড়ে গেছে। অস্থির সবজরি বাজার। অনেকের দাবী পঞ্চগড়ে নজরদারির অভাবে জিনিসের দাম দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে।

Please Share This Post in Your Social Media



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD