মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২, ০৬:০১ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
রাজশাহী জেলা সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের ভোট স্থগিত গাজীপুরে চোলাই মদ বিক্রির সময় নারীসহ গ্রেফতার দুই অপরাধ ধামাচাপা দিতে ৩৭ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলরের সাংবাদিক সম্মেলন নবীগঞ্জে বাসের ধাক্কায় অটোরিকশার চালকসহ দুইজন নিহত কুসিক নির্বাচনে প্রার্থী হলেন সিআইপি এমরান খান আজ শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস আশুলিয়ায় কুকুরের মাংস দিয়ে বিরায়ানী বিক্রির অভিযোগে ১ জন আটক পাইকগাছা থানার আসাদুজ্জামান ও মোঃ নাসির উদ্দিন খুলনা জেলা শ্রেষ্ট কর্মকর্তা নির্বাচিত যে কোন দুর্যোগে সিপিপি’র কর্মীরা জীবন বাজী রেখে মানুষের কল্যানে কাজ করেন- এমপি- বাবু খুলনার দক্ষিঞ্চালে মৌসুমের শুরুতেই ভাইরাসে মরে যাচ্ছে চিংড়ি মাছ; দুশ্চিন্তায় চাষিরা
বার কাউন্সিল নির্বাচনে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল থেকে প্রার্থী না দেওয়ায় বিএনপি’র ভরাডুবি

বার কাউন্সিল নির্বাচনে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল থেকে প্রার্থী না দেওয়ায় বিএনপি’র ভরাডুবি

নিজস্ব প্রতিবেদক: বাংলাদেশ বার কাউন্সিল নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত আইনজীবীদের ভরাডুবির বিষয়টি নিয়ে দলীয় নেতা কর্মিদের মধ্যে চলছে নানান আলোচনা-সমালোচনা ও চুল চেড়া বিশ্লেষণ। দলীয় প্রার্থি মনোনয়নের ক্ষেত্রে বিএনপি নেতৃবৃন্দ দুরদর্শিতার পরিচয় দেননি বলে মনে করছেন কেউ কেউ। এছাড়া সাধারন আসনে প্রার্থি মনোনয়নের ক্ষেত্রে বরিশাল সহ দক্ষিণাঞ্চল ও পশ্চিমাঞ্চলকে বাদ দেওয়ার মত অদুরদর্শিতার পরিচয় দেওয়াই বিএনপি সমর্থিত প্রার্থিদের ভরা ডুবির অন্যতম প্রধান কারন বলে মনে করছেন ভোটারসহ বিএনপি সমর্থিত অনেক আইনজীবী। তাদের মতে, বিএনপি নেতৃবৃন্দের এ ধরনের ভুল সিদ্ধান্তই দলীয় প্রার্থিদের পরাজয়ের প্রধান কারন। তবে প্রার্থি মনোনয়নের ক্ষেত্রে এ ধরনের ভুল থেকে শিক্ষা নিয়েই আগামীতে যে কোন নির্বাচনে সঠিক সিদ্ধান্ত নিতে হবে বলে মনে করছেন তারা। সূত্র জানায়, বাংলাদেশ বার কাউন্সিল নির্বাচনে এ বছর বরিশাল সহ সমগ্র দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল থেকে সাধারন আসনে কোন প্রার্থিকেই মনোনয়ন দেওয়া হয়নি। প্রার্থি মনোনয়নের শুরুতে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল থেকে একমাত্র প্রার্থি বরিশালের বাসিন্দা সেচ্ছা সেবক দলের কেন্দ্রীয় যুগ্ম সাধারন সম্পাদক ও বার কাউন্সিলের সাবেক উপ-সচিব, বিশিষ্ঠ আইনজীবী এ্যাডভোকেট এস এম এ বকরকে মনোনয়ন দেওয়া হয়। কিন্তু পরবর্তীতে রহস্যজনক কারনে তাকে দিয়ে মনোনয়ন পত্র প্রত্যাহার করিয়ে নেন কেন্দ্রীয় বিএনপি নেতৃবৃন্দ। ফলে নির্বাচনে বরিশাল সহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল থেকে বিএনপির আর কোন প্রার্থি ছিলনা। এতে করে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ভোটাররা চরম ক্ষুদ্ধ হলেও নিরবে তা মেনে নেন। এটা দলীয় নীতি নির্ধারনী মহলের একটি ভুল সিদ্ধান্ত ছিলো বলে মনে করছেন এ অঞ্চলের অনেক ভোটাররা। তাদের মতে, আওয়ামীলীগের নেতৃবৃন্দ বরিশাল সহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল থেকে সাধারন আসনে ৪ জন প্রার্থিকে মনোনয়ন দিয়েছেন। সেখানে বিএনপি দক্ষিণ ও পশ্চিমাঞ্চল থেকে সাধারন আসনে একমাত্র প্রার্থি এস এম এ বকরের প্রার্থিতা প্রত্যাহার করিয়েছেন। এতে করে এ অঞ্চলের ভোটাররা আশাহত ও ক্ষুদ্ধ ছিলেন। এটাও নির্বাচনে প্রভাব ফেলেছে এবং বিএনপির প্রার্থিদের পরাজয়ের জন্য প্রধান একটি কারন বলে মনে করছেন অনেক আইনজীবী। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপি সমর্থিত বরিশাল আইনজীবী সমিতির একাধিক সদস্য জানান, বিএনপির নীতি নির্ধারনী মহল কি করে সাধারন আসনে প্রার্থি মনোনয়নের ক্ষেত্রে দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলকে বঞ্চিত করতে পারলেন তা বোধগম্য নয়। প্রার্থি মনোনয়নের ক্ষেত্রে এটা তাদের অদুরদর্শিতার অভাব বলে মনে করছেন তারা। এছাড়া যাদের দলীয় মনোনয়ন দেওয়া হয়েছে তাদের অনেকেই আইনজীবী হিসেবে ততটা জনপ্রিয় ও পরিচিত মুখ নন। প্রার্থিদের ব্যাক্তিগত পরিচিতি দূর্বল হওয়াতে নির্বাচনে বিজয়ের ক্ষেত্রে প্রতিবন্ধকতার সৃস্টি হয়েছে। এ বিষয়টিকে গুরুত্ব দিয়েই প্রার্থি মনোনীত করা জরুরী ছিলো বলেও অনেকের মন্তব্য।

Please Share This Post in Your Social Media






© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD