বৃহস্পতিবার, ২১ অক্টোবর ২০২১, ১১:০১ অপরাহ্ন

বিজ্ঞপ্তি:
বিশেষ সতর্কীকরন - "নতুন বাজার পত্রিকায়" প্রকাশিত সকল সংবাদের দায়ভার সম্পুর্ন প্রতিনিধি ও লেখকের। আমরা আমাদের প্রতিনিধি ও লেখকের চিন্তা মতামতের প্রতি সম্পুর্ন শ্রদ্ধাশীল। অনেক সময় প্রকাশিত সংবাদের সাথে মাধ্যমটির সম্পাদকীয় নীতির মিল নাও থাকতে পারে। তাই যেকোনো প্রকাশিত সংবাদের জন্য অত্র পত্রিকা দায়ী নহে। নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
সংবাদ শিরোনাম :
বানারীপাড়া সৈয়দকাঠি ইউনিয়ন নির্বাচনে মাওলানা মোঃ কবির হোসেনের মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষনা বানারীপাড়ায় আইনশৃঙ্খলা সংক্রান্ত বিশেষ সভা অনুষ্ঠিত মন্ত্রীর ব্যক্তিগত কর্মকর্তা পরিচয়ে প্রতারণা,প্রতারক রাসেলকে গ্রেফতার করেছে কোতোয়ালী পুলিশ।। অসম্প্রদায়িক চেতনায় দেশ এগিয়ে যাচ্ছে- ওসমান আলমদার তারাকান্দায় ইউএনও’র ব্যাপক কর্মতৎপরতা, তিন ড্রেজার মালিককে ১,৫০,০০০ টাকা জরিমানা।। পানছড়িতে ওসি’র নেতৃত্বে গাঁজাসহ আটক- ১ ধীপুর ইপি নির্বাচন : ২ নং ওয়ার্ডে মেম্বার হিসেবে আবুল কালাম কে দেখতে চায় এলাকাবাসী লালমনিরহাটে পানির চাপে ভেঙে গেছে ফ্লাড বাইপাস বাঁধ হঠাৎ ভয়াবহ বন্যা বানারীপাড়ায় “মহাত্মা গান্ধী স্মৃতি পদক ২০২১” পেলেন সাংবাদিক এস মিজানুল ইসলাম ফুলবাড়িয়ায় তিনজন চেয়ারম্যানের প্রার্থীতা অবৈধ ৪ সদস্যের প্রার্থীতা বাতিল
দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে ঈদকে সামনে রেখে জাল টাকার কারবারীরা তৎপর

দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে ঈদকে সামনে রেখে জাল টাকার কারবারীরা তৎপর

এম. সাইফুল ইসলাম কবির, বাগেরহাট অফিস:ঈদকে সামনে রেখে দেশের বাগেরহাটসহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলে  জাল টাকার কারবারীরা তৎপর হয়ে উঠেছে। শহর থেকে শুরু করে গ্রামের হাট-বাজারগুলোতে এ চক্রের সদস্যরা সুকৌশলে ১০০০, ৫০০, ১০০ ও ৫০ টাকার জাল নোট ছড়িয়ে দিচ্ছে। হাট-বাজারে গিয়ে এসব জাল টাকা দ্বারা সাধারণ মানুষ প্রতারিত হচ্ছে। ইতোমধ্যে ১৯ হাজার বাংলাদেশী জাল নোট, চার হাজার ভারতীয় টাকা ও নয়টি চোরাই মোবাইলসহ এক ব্যবসায়ীকে আটক করেছে পুলিশ।বাগেরহাট খুলনার পাইকগাছা  ধরে ব্যবসার আড়ালে মানুষকে ঠকিয়ে আসছিল। ছাড়াও বাগেরহাট.খুলনা ওসাতক্ষীরা য় তাদের নেটওয়ার্ক রয়েছে। নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় জাল টাকার কারখানার হোতা ইউনুছ মিয়াকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে পুলিশ। সোমবার ভোরে বাগেরহাটের কচুয়া উপজেলায় অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেফতার করা হয়। সে বাগেরহাটের কচুয়া উপজেলার বারদাইরার মহিউদ্দিনের ছেলে। গত ২৪ এপ্রিল র‌্যাব-২-এর অভিযানে নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লার সস্তাপুর এলাকায় জাল টাকা তৈরির যে কারখানা আবিস্কৃত হয়েছিল সেটির মালিক ইউনুছ। সেদিন র‌্যাব-২-এর অভিযানে ওই কারখানা থেকে ৪২ লাখ টাকার জাল নোট ও জাল নোট তৈরির বিপুল সামগ্রীসহ কমলা বেগম ও সবুজ নামে দু’জনকে গ্রেফতার করা হয়েছিল। ওই সময় গ্রেফতাররা ছিল ইউনুছের কর্মচারী। ওই ঘটনায় ফতুল্লা মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হলে পুলিশ তদন্তে নেমে জাল নোট তৈরির হোতা ইউনুছের সন্ধান পায়। শেষে সোমবার ভোরে তাকে বাগেরহাট থেকে গ্রেফতার করা হয়।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই কামরুল ইসলাম বলেন, গ্রেফতারের পর ইউনুছ প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তাদের জানিয়েছে, ঈদের  আগে ২০ কোটি টাকার জাল নোট তৈরি করে বাজারে ছাড়ার  পরিকল্পনা ছিল ইউনুছের। চার মাস আগে ফতুল্লার দক্ষিণ সস্তাপুর এলাকার খান মঞ্জিলের ছয়তলা বাড়ির একটি ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে জাল টাকা তৈরি শুরু করে সে।
তিনি আরো বলেন, ইউনুসের আত্মীয়-স্বজনদের অনেকেই অবৈধ জাল নোট তৈরিতে জড়িত। একই অপরাধের মামলায় তার বড় চাচা বর্তমানে ঢাকার একটি আদালতে বিচারধীন অবস্থায় রয়েছেন। আশাশুনি থানার উপপরিদর্শক  জানান,  বাগেরহাটের মোরেলগঞ্জ উপজেলার পুটিখালী গ্রাম থেকে  জাল টাকা তৈরির সরঞ্জামসহ জাল টাকা তৈরি ও বিক্রি চক্রের হোতা শফিকুল ইসলামকে আটক করেছে পুলিশ। এ সময় তার কাছ থেকে নগদ ৪৯ হাজার পাচ’শ জাল টাকা উদ্ধার করা হয়।

আটককৃত শফিকুল ইসলাম সাতক্ষীরা জেলার আশাশুনি থানার পাইখালী গ্রামের আবুল কাশেমের ছেলে। তার বিরুদ্ধে মোরেলগঞ্জ থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। ব্যবসার আড়ালে জাল মুদ্রা ও চোরাই জিনিসপত্র ক্রয়-বিক্রয়ের ব্যবসা করে আসছিলো। গত শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে তার  দোকান থেকে স্থানীয় এক ক্রেতার হাতে ১০০ টাকার একটি জাল নোট ফেরত দিলে ক্রেতা ও বিক্রেতার মধ্যে বচসা বাধে। স্থানীয় জনগণ ওই টাকা জাল নিশ্চিত হওয়ার পর ইউনুস আলীর ক্যাশ বাক্স তল্লাশি করা হয়। এ সময় বাক্স থেকে ৫০০ ও ১০০ টাকার বাংলাদেশী ১৯ হাজার টাকার জাল নোট, চার হাজার ভারতীয় টাকা ও চোরাই নয়টি মোবাইল উদ্ধার করা হয়। এ ঘটনায় থানায় মামলা হয়েছে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, দক্ষিণাঞ্চলে সারাবছরই কম-বেশি জাল টাকার কারবারীরা সক্রিয় থাকে। তবে ঈদ ও পূজাসহ বিভিন্ন পার্বন এবং ধান ও পাট কাটার মওসুমে টাকা জালিয়াত চক্রের তৎপরতা মারাত্মকভাবে বৃদ্ধি পায়। এ সময় জালিয়াত চক্রের সদস্যরা বিভিন্ন হাট-বাজারকে টার্গেট করে ১,০০০, ৫০০, ১০০ ও ৫০ টাকার জাল নোট নিয়ে নেমে পড়ে। তারা পণ্যসামগ্রী বেচা-কেনার নামে এ জাল টাকা সুকৌশলে ক্রেতা-বিক্রেতার হাতে ধরিয়ে দেয়। সুনিপুণভাবে তৈরি এই জাল টাকা সহজে নকল বলে ধরা যায় না। এ কারণে বিকিকিনির সময় সাধারণ মানুষ এই টাকা নিয়ে সহজেই প্রতারিত হয়। একদিকে জাল টাকার কারণে মানুষ যেমন প্রতারিত হচ্ছে, অন্যদিকে ঘটনাটি পুলিশকে জানাতে গিয়ে উল্টা আইনের মারপ্যাচে তাদেরই ফেঁসে যেতে হয়। ফলে জাল নোট প্রদানকারীকে হাতেনাতে ধরতে না পারলে কেউ মুখ খুলতে চায় না। কেবল হাট-বাজারেই নয়, ব্যাংকেও জাল টাকার নোট ঢুকে পড়েছে বলে অভিযোগ রয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন ব্যাংক কর্মকর্তা জানান, টাকা জালিয়াত চক্র এমন সুনিপুণভাবে জাল টাকা তৈরি করছে যে, অনেক সময় ব্যাংকের মেশিনেও জাল টাকা ধরা পড়ছে না।আটক কিশোর শান্ত গাজী (১৬) উপজেলার শ্রীরামপুর গ্রামের স্বামী পরিত্যক্তা ঝরনা বেগমের ছেলে। কপিলমুনি মেগাসিটি ফুড এর সামনে থেকে জাল নোটসহ প্রকাশ্যে স্থানীয়দের সহযোগীতায় কিশোরকে আটক করে ফাঁড়িকে নিয়ে আসেন এসআই জাহাঙ্গীর। আটক এর সময় প্রত্যক্ষদর্শীরা নোটটি জাল বলে চিহ্নিত করলেও পর দিন এসআইসহ ফাঁড়ি ইনচার্জ আসল বলে ইল্লেখ করে আটক কিশোরকে ছেড়েদেন। প্রত্যক্ষদর্শী কিনু পালসহ কয়েক জানান, বাজারের প্রধান সড়কে বাসস্টপ মেগাস

Please Share This Post in Your Social Media



Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Design & Developed BY AMS IT BD