বিজ্ঞপ্তি:
নতুন বাজার পত্রিকা- বাংলাদেশের সমস্ত জেলা, উপজেলা, ক্যাম্পাস ও প্রবাসে প্রতিনিধি নিয়োগ চলছে! বিস্তারিত: ০১৭১২৯০৪৫২৬/০১৯১১১৬১৩৯৩
মধুপুরে বেগুনের ফলনে রেকর্ড : রপ্তানী হচ্ছে বিদেশে

মধুপুরে বেগুনের ফলনে রেকর্ড : রপ্তানী হচ্ছে বিদেশে


হাফিজুর রহমান.টাঙ্গাইল জেলা প্রতিনিধি॥ টাঙ্গাইলের মধুপুরে আনারসের পাশাপাশি বেগুনের ফলনে রেকর্ড ছাড়িয়েছে এবং দাম ভালো পাওয়াই কৃষকের মুখে হাসি। বেগুন চাষ করে একদিকে কৃষকরা যেমন আর্থিক ভাবে লাভবান হচ্ছেন অন্যদিকে দেশের মানুষের পুষ্টি ও সবজির চাহিদা পূরণে উলেখযোগ্য ভূমিকা রাখছে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে, মধুপুর উপজেলার কুড়ালিয়া ইউনিয়নের কদিমহাতীল, টিকরী, কোনাবাড়ী, কুড়াগাছা ইউনিয়নের পিরোজপুর, গোলাবাড়ী ইউনিয়নের গোলাবাড়ী, বেরীবাইদ ইউনিয়নের বেরীবাইদ মাগুনিত্মনগর, জাঙ্গালিয়া গ্রামসহ বিভিন্ন গ্রামে গত কয়েক বছর ধরে মাটির অনুর্বরতার কারণে চাষীরা তাদের জমিতে ধান আবাদ না করে বেগুনের আবাদ শুরম্ন করেছেন।

অধিক লাভজনক হওয়ায় এলাকার প্রত্যেক কৃষকই ৫ কাঠা থেকে সর্বোচ্চ ২৬ বিঘা পর্যনত্ম জমিতে বেগুনের চাষ করেছেন। এসব এলাকায় মাঠে মাঠে এখন কেবল বেগুনের ক্ষেত। কৃষকরা হাইব্রিড ও নসিমন এবং যশোরের ইসলামপুরী ও সাদা গুটি জাতের বেগুন চাষ করেছেন। উপজেলার মধুপুরের অনেক বেগুন চাষীরা বিঘায় বিঘায় জমি লীজ নিয়ে বেগুন চাষ শুরম্ন করেছেন। এ উপজেলায় প্রায় ৪০/৫০ জন বেগুন চাষী রয়েছে। তারাও অনুরূপভাবে ৬০০ থেকে ৮০০ কেজি বেগুন বিক্রি করে থাকেন। বেগুন চাষিদের হিসেব মতে শুধু এ উপজেলায়ই প্রতিদিন ২০ লাখ টাকার বেগুন উৎপাদন হচ্ছে। এ উপজেলার সবজি রপ্তানী হচ্ছে বিদেশের মাটিতেও। বেগুন বিক্রি করে এ উপজেলায় অনেক বেগুন চাষী স্বাবলম্বি হয়েছেন।

মো.রম্নহুল আমীন জানান,অন্যান্য ফসলের চেয়ে বেগুনে লাভ পাওয়া যায় বেশি তাই বেগুন চাষ করেছি। বাজার দাম অনুয়ায়ী যা খরচ করেছি তার চেয়ে বেশি উঠে আসছে। রমজানে বেগুনের দাম আরও বৃদ্ধি পাওয়ায় আমরা অধিক লাভবান হচ্ছি। বাজারে ভেজাল কীটনাশকের কারণে কৃষকের অনেক ক্ষতি হচ্ছে। কৃষকের দাবি সরকারের সংশিস্নষ্ট বিভাগ যদি কীটনাশক কোম্পানীগুলো নিয়ন্ত্রণ করে ভেজালমুক্ত কীটনাশকের ব্যবস’া করেন তবে বাংলাদেশ থেকে কোটি কোটি টাকার সবজি বিদেশে রপ্তানী করা যাবে। বিকল্প পন’ায় আড়তদারদের মাধ্যমে বেগুন বিদেশে যাচ্ছে। প্রতিদিন ৮-১০ ট্রাক বেগুন কিনে তারা ঢাকা, রাজশাহী, সিলেট, চট্টগ্রাম ও বগুড়াসহ দেশের বিভিন্ন স’ানে সরবরাহ করে থাকেন।

মাগুনিত্মনগর গ্রামের আ. মালেক, আমজাদ আলী, জটাবাড়ী গ্রামের সোবহান মিয়াও জানান, আমি ২৫ বিঘা জমি ২৫ হাজার টাকা করে প্রতি বছর ৫ বছরের জন্য লিজ নিয়ে গত দুই বছর ধরে বেগুন চাষ করেছি। বেগুন চাষে সংসারে সচ্ছলতা এসেছে। বেগুন চাষ করে স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন।

মধুপুর উপজেলার বেরীবাইদ গ্রামের বেগুন চাষী ভুট্টু মিয়া জানান, এ বছর আমি ৪’শ শতাংশ জমিতে বেগুনের আবাদ করেছি। বেগুনের ফলন ভাল হওয়ায় আমি প্রতি সপ্তাহে ৫ থেকে ৭ মণ বেগুন তুলে বিক্রী করতে পারি।

কৃষকরা আরও জানান,বেগুন বিক্রির জন্য ঢাকার পথে বিভিন্ন স’ানে পুলিশ চাঁদা তোলেন। বিশেষ করে আশুলিয়ার বেরীবাইদ ব্রিজ হয়ে মিরপুরের পথে ৪০-৫০ স’ানে পুলিশকে চাঁদা দিতে হয়।

উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ মাহমুদুল হাসান জানান, মধুপুরে এ বছরে অনেক জমিতে বেগুন চাষ হয়েছে। কৃষি বিভাগ কৃষকদের পাশে থেকে তাদের নিয়মিত নানা পরামর্শ দিয়ে যাচ্ছে। তবে কৃষকরা বেগুনের প্রধান শত্রম্ন পোকা দমনে যদি সেক্স ফেরোমিন ফাঁদ ব্যবহার করে তাহলে ফলন আরো ভালো হবে।

 

 

হাফিজুর রহমান
টাঙ্গাইল
মোবাইল : ০১৭৯৮-৮৯৯৫৫৯

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *




© natunbazar24.com কর্তৃক সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত
Developed BY: AMS IT BD